৮ মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দফতর রদবদল

আটজন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দফতর রদবদল করা হয়েছে। নতুন চার মন্ত্রীর শপথ গ্রহণের পর দিনই বুধবার (৩ জানুয়ারি) মন্ত্রিসভায় দফতর পুনর্বণ্টন করা হয়।

মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর বুধবার দুপুরে এক ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, আট মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর দফতর পুনর্বণ্টন করা হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে নতুন নিয়োগ পাওয়া এ কে এম শাজাহান কামালকে।

একই ভাবে মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে নতুন শপথ নেওয়া নারায়ণ চন্দ্র চন্দকে দেওয়া হয়েছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রীর দায়িত্ব।

মোস্তাফা জব্বারকে ডাকা, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

আর কাজী কেরামত আলীকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাদ্রাসা ও কারিগরি বিভাগের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় থেকে আনোয়ার হোসেন মঞ্জুকে দেওয়া হয়েছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব। আর পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে আনিসুল ইসলাম মাহমুদকে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসা রাশেদ খান মেননকে দেওয়া হয়েছে সমাজকল্যাণমন্ত্রীর দায়িত্ব।

এছাড়া সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হয়েও মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসা নুরুজ্জামান আহমেদ এখন থেকে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করবেন।

মন্ত্রিসভার পুরনো সদস্যদের মধ্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমকে তথ্য প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় শপথ নেন তিন মন্ত্রী ও এক প্রতিমন্ত্রী। বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ মন্ত্রিসভার নতুন চার সদস্যকে শপথবাক্য পাঠ করান। সেসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

শপথ নেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসা নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, লক্ষ্মীপুরের সাংসদ এ কে এম শাহজাহান কামাল এবং বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি মোস্তাফা জব্বার।

এছাড়া প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন রাজবাড়ীর সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী।

মতামত দিন