‘বিজয় দিবসের শপথ বিএনপি-জামায়াতকে পরাজিত করা’

আগামী নির্বাচনেও শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আসবে আশা প্রকাশ করে নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, আজকের বিজয় দিবসেই বিএনপি-জামায়াতকে পরাজিত করে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয় ছিনিয়ে আনার শপথ গ্রহণ করতে হবে।

শনিবার সকালে শহরের জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, যারা যুদ্ধাপরাধী এবং জঙ্গিবাদকে সমর্থন করে তাদের হাতে আওয়ামী লীগ কখনই পরাজয় বরণ করবেও না। বরং আগামী নির্বাচনে জয়লাভ করে বিজয়ের উল্লাস মেতে উঠবে আওয়ামী লীগ।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম এমপি, মাদারীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মো. মিয়াজউদ্দিন খান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাবুদ্দিন মোল্লা প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

নির্মাণ শ্রমিকদের বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হবে: শাজাহান খান
ঢাকা: ইমারত নির্মাণ শ্রমিকরা বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান।

তিনি বলেন, এসব শ্রমিকরা দেশের উন্নয়নে কাজ করছে। সরকারের পক্ষ থেকে তাদের জন্য বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হবে।

সোমবার রাজধানীর মতিঝিল বলাকা চত্বরে ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়ন (ইনসাব) আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

নৌপরিবহনমন্ত্রী বলেন, ইমারত নির্মাণ শ্রমিকরা ঝুঁকি নিয়ে ভবন নির্মাণ করে থাকে। কাজ করার সময় অনেকেই অসুস্থ হয়, আহত হয়। তাদের জন্য চিকিৎসা ভাতা আছে। এই চিকিৎসা ভাতা আরো বাড়াতে হবে।

বর্তমান সরকার শ্রমিকবন্ধব সরকার উল্লেখ করে তিনি বলেন, শ্রমিকদের অধিকার বাস্তবায়নে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, আয়োজক সংগঠনের সভাপতি রবিউল ইসলাম, সংসদ সদস্য (এমপি) কর্নেল (অব.) শওকত আলী, বসুন্ধরা সিমেন্টের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) সরোজ কুমার বড়ুয়া, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি শহীদুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ।

সুশীল সমাজের কড়া সমালোচনা করলেন নৌমন্ত্রী
ঢাকা: সুশীল সমাজ শুধু সমালোচনাই করতে জানে মন্তব্য করে নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, সুশীল সমাজ একটাও ভালো কাজ করেছে এমন কোনো উদাহরণ নেই।

তিনি বলেন, তারা শুধু সমালোচনাই করতে জানে। আর বলেন, ড্রাইভারদের (চালক) সাজা বাড়লেই নাকি সড়ক দুর্ঘটনা কমে যাবে।

শুক্রবার দুপুরে খুলনার সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনালে সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আলোচনা সভায় নৌমন্ত্রী এ কথা বলেন।

সভায় সভাপতিত্ব করেন খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও খুলনা মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি মিজানুর রহমান।

সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সাবেক এমপি আবদুল গাফফার বিশ্বাস, বাংলাদেশ সড়ক পরিহন ফেডারেশনের মহাসচিব ওসমান আলী, শ্রমিক নেতা আবদুর রহিম বক্স দুদু, মোল্লা মুজিবর রহমান।

সুশীল সমাজের উদ্দেশে শাজাহান খান বলেন, দুনিয়ার কোথাও সড়ক দুর্ঘটনায় চালকদের বড় ধরনের সাজার বিধান আছে, তা প্রমাণ করতে পারলে চালকদের ফাঁসি পর্যন্ত দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। কিন্তু এমন আইন যদি দুনিয়ার কোথাও না থাকে তবে এ দেশের চালকরাও বড় ধরনের শাস্তি পেতে পারে না।

সড়ক দুর্ঘটনায় সারা বিশ্বে চালকদের দুই বছরের বেশি সাজা দেওয়ার বিধান নেই বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

দেশে সড়ক দুর্ঘটনা কমে গেছে দাবি করে নৌমন্ত্রী আরো বলেন, সরকার কিছু কাজ করেছে যে কারণে দুর্ঘটনা কমে গেছে। এ ছাড়া চালকরা এখন অনেক সচেতন হয়েছেন। তবে তাদের আরো সচেতন হতে হবে।

শাজাহান খান বলেন, আইন আমরাও মানব, কিন্তু যারা আইন প্রয়োগ করবেন, তাদেরও আইন মানতে হবে। শুধুমাত্র আমাদের ওপর আইন চাপিয়ে দেবেন, সেটা হবে না।

মন্ত্রী বলেন, পরিবহন খাত এমন একটা জায়গা, যেখানে চাঁদাবাজি হয়। ট্রেড ইউনিয়ন দখল করা, টার্মিনাল দখল করার একটা প্রবণতা থাকে। এই চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে।

সম্প্রতি আইন মন্ত্রণালয় সড়ক দুর্ঘটনায় চালকদের বিভিন্ন প্রকার শাস্তি ও অর্থদণ্ডের বিধান রেখে আইনের খসড়া তৈরি করেছে।

অনুষ্ঠানে শ্রমিক নেতা ওসমান আলী এই খসড়ার সমালোচনা করে শ্রমিকদের সজাগ থাকার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, এই খসড়া আইনে দুর্ঘটনার জন্য চালকদের ২৫ লাখ টাকা জরিমানার বিধান করা হচ্ছে। আর এই আইন হলে কেউ গাড়ি চালাতে আসবে না।

মতামত দিন