অসুস্থ শিক্ষকের সংখ্যা একশ’ ছাড়ালো

নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা এমপিওভুক্তির দাবিতে পঞ্চম দিনের মতো আমরণ অনশন অব্যাহত রেখেছেন।
তবে প্রতিদিনই অসুস্থ শিক্ষকের সংখ্যা বাড়ছে।

বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত অন্তত একশ’ শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন, অনশন কর্মসূচির সমন্বয়ক ও ফেডারেশনের যুগ্মসম্পাদক শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, অসুস্থ শিক্ষকদের মধ্যে ২৯ জনকে রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। কারও কারও অবস্থা গুরুতর।
ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার সাংবাদিকদের জানান, অনশনে অসুস্থ হয়ে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।
তবে আবার ফিরে এসেছেন অনশনস্থলেই। দাবি আদায় না হলে অনশনস্থলেই মরতে চান।

তিনি বলেন, তারা এমপিওভুক্তির সুনির্দিষ্ট ঘোষণা চান। এজন্য শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে কর্মসূচি প্রত্যাহার করেননি।
ঘোষণা না আসা পর্যন্ত অনশন ভাঙবেন না।

বুধবার অনশন কর্মসূচিতে অন্যদের মধ্যে সংহতি জানান কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল- বাসদের রাজেকুজ্জামান রতন, ডা. আবু সাইদ, ডা. ওবায়দুল ইসলাম, মানবাধিকার কর্মী ড. ফরিদুল ইসলাম, জসিম উদ্দিন মাসুদ, শিক্ষক নেতা নজরুল ইসলাম রনি, রবিউল আলম, অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার প্রমুখ।

এমপিওভুক্তির দাবিতে গেলো ২৬ ডিসেম্বর থেকে দেশের বিভিন্ন এলাকার শিক্ষকবৃন্দ জাতীয় প্রেসক্লাবের অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন। দাবি আদায় না হওয়ায় গেলো রোববার থেকে অবস্থান কর্মসূচি রূপ নেয় আমরণ অনশনে।

মতামত দিন