আসামের বাঙালিদের পক্ষে কথা বলায় মমতার বিরুদ্ধে মামলা

আসামের জাতীয় নাগরিক নিবন্ধন তালিকার প্রেক্ষাপটে বাঙালিদের পক্ষে কথা বলায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছে আসাম পুলিশ। বুধবার পশ্চিমবঙ্গের বীরভূমে এক সমাবেশে ওই তালিকার সমালোচনা করেন মমতা। এর পরদিনই তার বিরুদ্ধে এই মামলা দায়েরের ঘটনা ঘটলো।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৩১ ডিসেম্বর মধ্যরাতে আসামে জাতীয় নাগরিক নিবন্ধন (এনআরসি) তালিকার প্রথম খসড়াটি প্রকাশ হয়। প্রকাশিত খসড়া তালিকায় স্থান পায়নি প্রায় ১ কোটি ৩৯ লাখ বাসিন্দা। যাচাই বাছাই শেষে তাদের নাম পরবর্তী ধাপের তালিকায় যুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছে রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারেও দলটি ক্ষমতায় রয়েছে।

আসাম বিজেপি বলছে, পূর্ণাঙ্গ নাগরিক তালিকায় যাদের নাম থাকবে না তাদের ‘অবৈধ অভিবাসী হিসেবে বিচেনা করা হবে।

আসামের গুয়াহাটির উচ্চ আদালতের আইনজীবী তৈলেন্দ্র নাথ দাস এবং পুলিশ যৌথভাবে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩ (এ) ধারায় মমতার বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেছে।

বীরভূমের ওই সমাবেশে মমতা অভিযোগ করেন, ইচ্ছে করেই আসাম থেকে বাঙালিদের তাড়ানো হচ্ছে। তাদের নাগরিকত্ব ও অন্যান্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করে বিজেপি সরকার পুরনো ‘বাঙালি হটাও’ অভিযান পুনরায় জাগ্রত করছে।

আসাম সরকারের এই সিদ্ধান্তে বিস্ময় প্রকাশ করে মমতা বলেন, ‘একটি রাজ্যে ৩০/৪০ বছর ধরে বসবাসকারীদের কেন আবার ভোগান্তিতে ফেলতে হবে?’

মমতার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে তার দল তৃণমূল কংগ্রেস। দলের সাধারণ সম্পাদক পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, বিজেপি আর আসাম সরকার যদি ভেবে থাকে এসব করে তৃণমূলকে মুসলমানদের লড়াই থেকে বিরত রাখা যাবে তবে তারা বোকার স্বর্গে বাস করছে। সূত্র: ফার্স্টপোস্ট।

মতামত দিন