বম্ব সাইক্লোন: যুক্তরাষ্ট্রে শৈত্য প্রবাহে ১১জনের মৃত্যু

যুক্তরাষ্ট্রের পূর্বাঞ্চলে তীব্র শৈত্য প্রবাহে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে অন্তত ১১ জনের। গত বড়দিন থেকে শুরু হয়ে স্মরণকালের মধ্যে টানা দশম দিনের মত সব থেকে কম তাপমাত্রা বিরাজ করছে যুক্তরাষ্ট্রে। আর এতে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ১১ জনের। খবর বিবিসির।

আবহাওয়াবীদের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, বাতাসের বড় ধরনের চাপ হ্রাস পাওয়ার কারণে ব্যাপক মাত্রায় শীতকালীন ঝড় তৈরি হবে যা অনেকটা বোমার বিস্ফোরণের মত। দেশটির পূর্বাঞ্চলে আঘাত হানা এ ঝড়ে ইতোমধ্যে ফ্লোরিডায় তুষার ঝড় শুরু হয়েছে।

আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা বর্তমান অবস্থাকে ‘বম্ব সাইক্লোন’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। ‘বম্ব সাইক্লোন’ বা ‘ওয়েদার বম্ব’ হিসেবে বলা হচ্ছে এক্সপ্লোসিভ সাইক্লোজেনেসিসকে। যখন ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নিম্ন চাপীয় অবস্থার চাপ ২৪ মিলিবার পর্যন্ত কমে যায় এবং সেই নিম্নচাপীয় অবস্থার মধ্যে যখন ব্যাপক বাতাস প্রবাহিত হয় তখন সেই অবস্থাকে বলা হচ্ছে “বম্ব সাইক্লোন”।

বম্ব সাইক্লোনের বাতাসের বেগ এত বেশি হতে পারে যা একটি বড় গাছকে উপড়ে দিতে পারে অথবা বড় কোনো অবকাঠামোর মারাত্মক ক্ষতিও হতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস সতর্ক করে জানিয়েছে, “পুরো সপ্তাহ জুড়েই যুক্তরাষ্টের দুই-তৃতীয়াংশ এলাকায় বিশেষ পূর্বাঞ্চলে আর্কটিক বায়ুর ভর বিদ্যমান থাকবে। যে কারণে খুবই ঠাণ্ডা আবহাওয়া এবং বিপদজনক ঠাণ্ডা বাতাসের ঝড় হওয়ার আশংকা আছে।”

ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে “আসন্ন ঝড় শীতকালীন হ্যারিকেনে রূপ নিতে পারে। এটি হবে পূর্ব যুক্তরাষ্ট্রের গত এক দশকের মধ্যে সবথেকে তীব্র ঝড়।”

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকালে আঘাত হানার সময় এ ঝড়ের কেন্দ্রের গড় তাপমাত্রা ৯ দশমিক ১ ফারেনহাইট বা হিমাংকের থেকে ১২ দশমিক সাত সেলসিয়াস নিচে হতে পারে বলে জানিয়েছে সিএসবি নিউজ।

বিবিসি আবহাওয়ার খবর অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার অথবা শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের পূর্ব উপকূলে মূল ঝড়টি আঘাত হানতে পারে। এসময় প্রবল বেগের বাতাসের সাথে বৃষ্টি এবং তুষারপাত হবে।

মতামত দিন