লক্ষীপুরের কমলনগরে ৩ বছরের শিশু ধর্ষণ!

অ আ আবীর আকাশ, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধি :
লক্ষীপুর জেলা কমল নগর উপজেলার চরমাটিন ইউনিয়নের ৫নং ওর্য়াডস্হ দক্ষিণ চরমাটিন গ্রামে তিন বছরের শিশু ধর্ষনে শিকার হয়েছে। অাজ শুক্রবার(০১ জুন) সকাল ৯ ঘটিকার সময় নৃশংস এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষক সায়েদ উল্যা ঘটনার পর পরই পালিয়ে যায়। বখাটে ধর্ষক সায়েদ উল্যা ধর্ষিতা শিশুটির সম্পর্কে ফুফা হয়।

তার বাড়ী কমলনগরের কাদির পন্ডিতের হাট এলাকায়। সে তার শশুর বাড়ী দক্ষিণ চরমাটিন গ্রামে ডাক বাংলা সমাজের অাবুর বাপের বাড়ীতে ঘর জামাই হিসেবে বসবাস করে অাসছে। সায়েদ (৪০) এক জন পান ব্যাবসায়ী। ধর্ষিতা শিশুর অবস্হা অাশংকা জনক। তাকে রক্তাক্ত অবস্হা লক্ষীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শিশুটির মা জানান,অামার স্বামী এক জন দিন মজুর, সে প্রতিদিনের ন্যায় সকালে কাজে চলে যায়, অামার মেয়ে ঘরে অাম খেয়ে অামার ননদ পেয়ারা বেগমের ঘরে গেলে তার স্বামী সায়েদ উল্যা মেয়েকে একা পেয়ে ধর্ষন করে।মেয়ের চিৎকারে অামার শাশুড়ী তাদের ঘরে গেলে দেখতে পায় মেয়েটি রক্তাক্ত অবস্হা চটপট করছে।পরে অামার শাশুড়ী তাকে কোলে নিয়ে ঘরে অাসলে অামরা সব জানতে পারি। এরই মধ্যে সায়েদ পালিয়ে যায়। মেয়েকে অচেতন অবস্হা লক্ষীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে অাসি।

লক্ষীপুর সদর হাসপাতালের অাবাসিক মেডিকেল অফিসার ( অার এম ও) অানোয়ার হোসেন বলেন, প্রাথমিক ভাবে দেখা যায় শিশুটি ধর্ষনের শিকার হয়েছে। ধর্ষিত হওয়ায় শিশুটির শরীর থেকে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের ফলে তার অবস্হা তেমন ভালো নয়। তার শরীরে রক্তের প্রয়োজন এবং শিশুটির চিকিৎসার ব্যাপারে অামরা সবাই যথেষ্ট কাজ করে যাচ্ছি।

মতামত দিন