উত্তরাঞ্চলে কমছে না শীতের প্রকোপ,কুড়িগ্রামে শিশুর মৃত্যু

কুড়িগ্রামে শীতের তীব্রতা বেড়েই চলেছে। গেল দু’দিন ধরে শীতের দাপটে কাবু হয়ে পড়েছে জেলার সব শ্রেণির মানুষ। গত দু’দিনে শীতজনিত কারণে অসুস্থ্য হয়ে বিভিন্ন বয়সের প্রায় দেড় শতাধিক রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) বেলা ১১ টা পর্যন্ত অনেক জায়গায় সূর্য দেখা যায়নি। জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

এদিকে তীব্র শীতের কারণে ডায়রিয়ায় বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় জেলা সদর হাসপাতালে মীম (দেড় বছর) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শীতজনিত রোগে আক্রান্ত ওই শিশুকে রাজারহাট উপজেলা থেকে কুড়িগ্রাম হাসপাতালে ভর্তি করেছিলেন বাবা বুলবুল। কিন্তু তীব্র শীতে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত শিশুটি আধাঘণ্টা পরেই মুত্যুর কোলে ঢলে পড়ে।

শিশু মৃত্যু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. আনোয়ারুল হক জানান, রোগীটিকে শেষ মূহুর্তে ভর্তি করা হয়েছিল। সচেতন বাবা-মায়ের উচিত কোনো খারাপ পরিস্থিতি হলে সাথে সাথেই রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসা। তিনি আরও জানান, শীত মোকাবেলায় হাসপাতালে প্রয়োজনীয় ওষুধপত্রের মজুদ নিশ্চিত করা হয়েছে। বিভিন্ন রোগে হাসপাতালে প্রায় দেড় শতাধিক রোগী ভর্তি রয়েছে।

নদ-নদী তীরবর্তী ও শহরের অসহায় দরিদ্র মানুষ এক কাপড়ে পার করছেন কনকনে শীত। ঘন কুয়াশা আর হিমেল বাতাসে জেলায় দিন-দিন বাড়ছে শীতের তীব্রতা। শীতের কারণে বাড়ছে ঠাণ্ডাজনিত রোগব্যাধি। এ অবস্থায় দুর্ভোগে পড়েছে শিশু-বৃদ্ধ আর খেটে খাওয়া মানুষেরা।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন অফিস সূত্র জানিয়েছে, চলতি শীত মোকাবেলায় ত্রাণ বিভাগ থেকে ৯ উপজেলায় ৫৭ হাজার কম্বল সরবরাহ করা হয়েছে।

মতামত দিন