মেঠোপথের মৃত্যুকালে-অ আ আবীর আকাশ

অ আ আবীর আকাশ:

কষ্ট পাই, যখন শুনি কাঁচা আদুল রাস্তা কালো পীচে
ঢেকে যাবে। পাযুগল জড়াবে না কাদামাটি আর
পাথরে ইটে সীচ ঢেলে রোলারে পেষণে চাপা পড়ে যাবে নিচে
নরম আদুরে মাটিগুলো। তখন বুকটা ব্যথায় হাহাকার।

বর্ষায় একটু কাদার ভয়ে মানুষেরা নিষ্ঠুর আচরণ করে
পাথর বসায় উদার বক্ষে, এতোদিন বড়ো যত্নে আগলে
রাখতো পা। আজ শুনি তার করুণ ব্যদনার্ত ভরে
বিলাপ ধ্বনি। মানুষ আনে সুবিধার সবরকম পাহাড় দখলে।

মানুষ মানুষে রক্তপাত ঘটায় বড়ো যাতনা বিষে,তবু
মার্জনা নেই এসমাজে কঠিন পাষাণ সীমারের ভীড়ে।
সেখানে মেঠোপথের উঁচুনীচু ঢাল ভাওয়াইয়া সুর কভু
পৌঁছায় না তাদের কানে। মানুষ সজ্ঞানে আসে না ফিরে।

রাখালের গরুফেরা খুরে ধুলো উড়ে দখিনা হাওয়ার মেঘ
কিশোরের টায়ার রীম চালানো ছন্দ কিবা কৃষকের ছায়া বিশ্রাম
মানুষের পশুত্বে ঢোকে না হিংসুটে চোখে দেখে না সম্যাগ।

তবু বলি, মেঠোপথ বেঁচে থাক বাংলার আনাচে কানাচে
এজাতি দারুন আনন্দময়ী নইলে ক্যামনে সুখেতে বাঁচে?
পীচঢালায় উস্টো খেয়ে রক্তে লালে লাল কালো পথ
কণা-পাথর -ইটে উলঙ্গ পা হাটে কিরে, চলে এক রথ?

মতামত দিন