নিউইয়র্কে রাস্তায় বরফ : ভোগান্তিতে ৩ লাখ প্রবাসী

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কসহ বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যে প্রচণ্ড তুষার ঝড় থামলেও রাস্তায় বরফের পুরু স্তর জমায় ভোগান্তিতে পড়েছেন সেখানে বসবাসরত ৩ লাখেরও বেশি প্রবাসী বাংলাদেশি।

নিউইয়র্কের জ্যামাইকায় বসবাসরত এক বাংলাদেশি জানান, বৃহস্পতিবার টানা ঝড়ের কারণে স্কুল-বিশ্ববিদ্যালয় কার্যত বন্ধ ছিলো। শুক্রবার নিউইয়র্কের আকাশ পরিষ্কার থাকায় এবং রোদ ওঠায় বাচ্চারা স্কুলে গিয়েছে। তবে এখনো শূন্যের অনেক নিচে তাপমাত্রা থাকায় দুর্ভোগ হচ্ছে। রাস্তায় প্রচুর বরফ জমে আছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত তুষার ঝড়ে উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ক্যারোলাইনা, নর্থ ক্যারোলাইনা, উইসকনসিন, মিসৌরি, মিশিগান, নর্থ ডাকোটা, ভার্জিনিয়া, ম্যারিল্যান্ড, ডিসি, পেনসিলভেনিয়া, ডেলাওয়ারে, নিউ জার্সি, কানেকটিকাট, ম্যাসেচুসেটস, রোড আইল্যান্ড, নিউ হ্যামশায়ার, ভারমন্ট ও নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের প্রায় দেড় কোটি আমেরিকান গৃহবন্দি হয়ে পড়েন।

বৃহস্পতিবার রাতে যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আক্রান্ত এলাকাগুলোতে ১২ ইঞ্চি থেকে ২৪ ইঞ্চি পর্যন্ত তুষারপাত ছাড়াও বস্টন ও লং আইল্যান্ডে উপকূলীয় এলাকায় ১২ থেকে ১৫ ফুট পর্যন্ত জলোচ্ছ্বাস হয়েছে। বস্টনের রাস্তা ডুবে যায় গলে যাওয়া বরফের পানিতে।

দুর্যোগের কারণে নিউ ইয়র্ক, বস্টন, ফিলাডেলফিয়া, বাল্টিমোর, প্রভিডেন্স, রোড আইল্যান্ডসহ ১১টি সিটির সব স্কুলে ছুটি ঘোষণা করা হয় বৃহস্পতিবার। সরকারি অফিসে ওপস্থিতির ওপর কোনো বাধ্যকতা ছিল না।

নিউইয়র্ক, নিউ জার্সি, পেনসিলভেনিয়া, ম্যাসেচুসেটস ও কানেকটিকাট ইত্যাদি অঙ্গরাজ্যের বিস্তির্ণ এলাকায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। লোকজনকে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন রাজ্য গভর্নররা।

মতামত দিন