আড়াই কোটি টাকা ঋণের চিরকুট লিখে গার্মেন্টস মালিকের আত্মহত্যা

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় রপ্তানিমুখী গার্মেন্ট শিল্প প্রতিষ্ঠান এনএম ফ্যাশনের মালিক আব্দুল মতিন আত্মহত্যা করেছেন।

ব্যাংক লোনসহ বিভিন্ন লোকের কাছের প্রায় আড়াই কোটি টাকা ঋণ থাকায় তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। ঋণের কথা মৃত্যুর আগে একটি খাতায় লিখে গেছেন আব্দুল মতিন। সেই খাতাটি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার (৯ জুন) সকালে ফতুল্লায় মাসদাইর পাকাপুল এবি প্লাজার সপ্তম তলায় বাড়ির ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেচিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ দুপুরে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

নিহত আব্দুল মতিন কুষ্টিয়ার দৌলতপুর থানার মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে। তিনি সপরিবারে ফতুল্লার মাসদাইর পাকাপুল এলাকার এবি প্লাজার সপ্তম তলায় নিজস্ব ফ্ল্যাটে থাকতেন।

নিহত আব্দুল মতিনের স্ত্রী নাদিরা আক্তার রেখা, এক ছেলে মাহাদী হাসান সাইম (৮) ও মেয়ে ফাতেমা আক্তার জোহরা (১৫)।

নিহতের স্ত্রী নাদিরা আক্তার রেখা কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, উনার কত কোটি টাকা ঋণ আছে আমাদের কিছুই জানায়নি। আমাকে যদি জানাতো তাহলে আমরা ব্যবস্থা করতাম।

নিহতের বড় ভাই নজরুল ইসলাম বলেন, ঋণসহ বিভিন্ন বিষয়ে সে সমস্যায় থাকলেও কখনো কাউকে কিছু বলেনি। গত বছরও আমি তার হয়ে অনেক দেনা দিয়েছি। নিজের কষ্ট নিজের কাছে সব সময় চাপিয়ে রাখতো। গত বছর মতিনের ঋণ দেড় কোটি টাকা আমি পরিশোধ করেছি। তার যদি ঋণ থাকে সেটা আমাকে বললে আমি পরিশোধ করে দিতাম। কেন সে আত্মহত্যা করলো বুঝতে পারছি না।

ঘটনাস্থলে যাওয়া নারায়ণগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শরফুদ্দিন জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ঋণের টাকার জন্য গার্মেন্টস ব্যবসায়ী আত্মহত্যা করেছেন।

মতামত দিন