চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে আজ চলচ্চিত্র প্রদর্শনী

জাঁকজমকপূর্ণ এবংউৎসবমুখর পরিবেশে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়ে গেল ‘চিটাগং শর্ট ফিল্ম ফেস্টিভালের। আজ উৎসবের দ্বিতীয় দিনে থিয়েটার ইনস্টিটিউট চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হবে চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও পুরষ্কার বিতরণীঅনুষ্ঠান।

শনিবার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে নির্বাচিত চলচ্চিত্রকারদের লালগালিচা সংবর্ধনায় উদ্বোধন করা হয় তৃতীয় চিটাগংশর্ট ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল।

উৎসব পরিচালক শারাফাত আলী শওকতের পরিচালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রদর্শনীর জন্যে নির্বাচিত ২০টি চলচ্চিত্রের পরিচালকরা লালগালিচায় হেঁটে মঞ্চে আসেনএবংতাঁদের অনুভূতিএবংচলচ্চিত্র নিয়ে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন বিশিষ্ট চলচ্চিত্রকার হায়দার রিজভী।

তিনি তাঁর বক্তব্যেবলেন, ‘বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকারদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো তারা অলস। একজন ফিল্মমেকার দিনরাত ২৪ ঘন্টা চিন্তা করবে শুধু তার ফিল্ম নিয়ে। কি করবে, কিভাবে করবে। শ্যুটিং স্পটে গিয়ে চিন্তা করবো কি ফ্রেম ধরবো, এভাবে আর যাই হোক, চলচ্চিত্র হয়না।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম চলচ্চিত্র কেন্দ্রের পরিচালক শৈবাল চৌধুরী, প্রখ্যাত লেখক ও সাংবাদিক নাজিম উদ্দীন শ্যামল,সানশাইনগ্রামার স্কুলের প্রিন্সিপাল সাফিয়া গাজী রহমান,হ্যামার স্ট্রেংথ ফিটনেস সেন্টারের স্বত্বাধিকারী রুম্মানআহমেদ।উদ্বোধন করেন দৈনিক আজাদী’রপরিচালনা সম্পাদক ওয়াহিদ মালেকএবংসংবাদ সম্মেলন পরিচালনা করেন চিটাগং শর্ট-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী।
উল্লেখ্য, চট্টগ্রামের তরুণ নির্মাতাদের উদ্বুদ্ধ করতে২০১৫ সালের ২৫ মে দৈনিক আজাদীর সার্বিক সহযোগিতায় ও নকশা’র উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত তরুণ চলচ্চিত্রকারদের সংগঠন‘চিটাগংশর্ট’ তৃতীয় বারের মত আয়োজন করছে এ চলচ্চিত্র উৎসবের।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর প্রবীণ চলচ্চিত্রকার ও প্রশিক্ষক হায়দার রিজভীর পরিচালনায় থিয়েটার ইনস্টিটিউ টচট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হয় মাস্টার ক্লাস।

আজ মাস্টার ক্লাসের পরপরই থাকছে চলচ্চিত্র প্রদর্শনী। বেলা ১:৩০টা এবং ৪:৩০টা দুই পর্বে শুরু হওয়া প্রদর্শনীতে নির্বাচিত ২০টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র দেখানো হবে। সন্ধ্যা ৭:৩০টায় উৎসবের প্রধানআকর্ষণ- পুরষ্কার বিতরণী। শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ পরিচালক, শ্রেষ্ঠ অভিনেতা, শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী ও শ্রেষ্ঠ বিদেশী ভাষার চলচ্চিত্র এই পাঁচটি ক্যাটাগরিতে বিজয়ীদের পুরস্কার তুলে দেবেন চট্টগ্রাম ও ঢাকার বিশিষ্ট ও চলচ্চিত্র ব্যক্তিবর্গ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবেউপস্থিত থাকবেন দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেক।
উল্লেখ্য, প্রতিবারের মতো এবারও উৎসবের পৃষ্ঠপোষকতায় আছে দৈনিক আজাদী, ম্যাগাজিন আই, বারকোড রেস্টুরেস্ট গ্রুপ এবং আমরা চট্টগ্রাম।

মতামত দিন