রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশ-তুরস্ক একসঙ্গে কাজ করবে: প্রধানমন্ত্রী

দুই দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও পারস্পরিক স্বার্থে একসঙ্গে কাজ করার বিষয়ে বাংলাদেশ-তুরস্ক একমত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আশা করি, আমাদের উন্নয়ন যাত্রায় বাংলাদেশের পাশে থাকবে তুরস্ক। রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশ-তুরস্ক নিবিড়ভাবে কাজ করে যাবে।’ সোমবার (১৯ ডিসেম্বর) বিকেলে প্রধানমন্ত্রী তার কার্যালয়ে সফররত তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিমের উপস্থিতিতে দুই দেশের দু’টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের পর এক যৌথ বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের শিমুল হলে একান্ত বৈঠকে বসেন শেখ হাসিনা ও ইলদিরিম। ওই বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের চামেলী হলে দুই দেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে মিলিত হন তারা। এরপর দুই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে করবী হলে দুটি সমঝোতা স্মারক সই করা হয়। এর একটি বাংলাদেশের এসএমই ফাউন্ডেশন ও তুরস্কের এসএমই ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনের মধ্যে, অন্যটি বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) ও টার্কিশ স্ট্যান্ডার্ডর্স ইনস্টিটিউশনের মধ্যে।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যে উচ্চ পর্যায়ের সফরের অংশ হিসেবে এই সফর। এই সুযোগে আমি মিয়ানমার থেকে আসা রোহিঙ্গা ও বাংলাদেশের প্রতি ধারাবাহিক সহযোগিতার জন্য আমি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে ধন্যবাদ জানাতে চাই।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় ও সাধারণ আন্তর্জাতিক স্বার্থের বিষয়ে আমাদের ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। উভয় দেশের পারস্পরিক স্বার্থে বিভিন্ন দ্বিপক্ষীয় ও আন্তর্জাতিক ইস্যুতে আমরা নিবিড়ভাবে কাজ করার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছি।’  তিনি আরও বলেন, ‘আমরা আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও উভয়ের স্বার্থে কাজ করতে সম্মত হয়েছে। আমরা আশাকরি আমাদের উন্নয়নে যাত্রাপথে তুরস্ককে আমরা পাশে পাব।’

মতামত দিন