টানাবর্ষণে সাতকানিয়ায় ভয়াবহ বন্যা- দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি

মোঃ এরশাদ আলম, লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম):

গত এক সপ্তাহ টানাবর্ষণে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলায় প্রায় ৮০শতাংশ এলাকা বন্যায় কবলিত হয়েছে।

বন্যায় পানিবন্দী রয়েছে শিশু, বৃদ্ধ, মহিলাসহ কয়েকলক্ষ মানুষ।হাজার হাজার মানুষের ঘর-বাড়ী, গবাদী পশু সহ ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

বিশেষ করে উপজেলা সদর, বাজালিয়া, ঢেমশা, কেওচিয়া সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষ বন্যায় কবলিত হয়েছে। এসব এলাকায় কোনো কোনো বাড়ির ছাউনি পর্যন্ত ডুবে গেছে বন্যার পানিতে।

মাথা গোঁজার টাই ঠুকু হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে অনশনে রাত জাগছে অনেকেই।

স্থানীরা জানান, সাতকানিয়ায় গত বিশ বছরে বন্যায় এমন পরিস্থিতি হয়নি।এবারের বন্যায় ১৯৯৭ সালের সেই ভয়বহ বন্যাকেও ছাড়িয়ে গেছে।

তাই সাতকানিয়া-লোহাগাড়াকে বন্যা দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসি।

শনিবার সকাল থেকেই বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ও পানিবন্দী জনগণের কাছে ত্রাণ বিতরণ করলেন সাতকানিয়া উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মুজিবুর রহমান (চেয়ারম্যান)।

চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান জানান, চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় ৮০শতাংশ বন্যায় প্লাবিত হয়েছে, গত বিশ বছরের মধ্যে এমন বন্যা হয়নি।উপজেলার এলাকা তলিয়ে গেছে। পানিবন্দী রয়েছে সাড়ে তিন লাখ মানুষ।

তিনি অারো জানান, সাবেক ৩ বারের সফল প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে এবং বিএনপি’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে সাতকানিয়া উপজেলা বিএনপি’র উদ্যোগে আমরা সপ্তাহব্যাপী ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচি চালিয়ে যাবো।
উপজেলা বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল সহ সহযোগী অংগসংগঠনের সকল নেতাকর্মীদের বন্যায় দুর্গত মানুষের পাশে দাড়াঁনোর অাহবান জানান।

মতামত দিন