বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদে জমি নিয়ে বিরোধ, স্থানীয়দের সাথে মারামারির ঘটনায় প্রশাসনিক বৈঠক

আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি:
চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদের সীমানা প্রাচীর নির্মাণে দুই পক্ষের মারামারির ঘটনায় জেলা, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ ও হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টার ঐক্য পরিষদের নেতাদের সাথে উপজেলা প্রশাসনের সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার (১৭ মে) দুপুরে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার অফিসে দু’পক্ষের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে এ সমঝোতার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

এসময়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ জোবায়ের আহমেদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মৃণাল কান্তি ধর, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) তানভীর আহমেদ চৌধুরী, কৃষি কর্মকর্তা হাসানুজ্জামান, প্রকল্প বাস্তাবায়ন কর্মকর্তা জামিরুল ইসলাম, বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সোলাইমান, আনোয়ারা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অসীম কুমার দেব, আনোয়ারা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুগ্রীব মজুমদার দোলন, উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি এড. হরিপদ চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক সাগর মিত্র, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক শওকত ওসমান, যুগ্ম আহবায়ক অনুপম চক্রবর্তী বাবু, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রনি সিংহ সহ অনন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে বৈরাগ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. সোলাইমান ও স্থানীয়দের পক্ষে সুশান সিংহ ও তাদের প্রতিনিধিরা নিজ-নিজ বক্তব্য উপস্থাপন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকতার কাছে। উভয় পক্ষের আলাদা আলাদা শুনানি কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। বৈঠকে উভয়ের কাগজপত্র পর্যালোচনা করে আগামী বৃহস্পতিবার ইউনিয়ন পরিষদ ও স্থানীয় সুশান সিংহের কাগজপত্র দেখে সঠিক পরিমাপ করে উভয় পক্ষকে জায়গা বুঝিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

এদিকে চট্টগ্রাম জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অসীম কুমার দেব ও আনোয়ারা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুগ্রীব মজুমদার দোলন জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দু’পক্ষের মারামারি ঘটনা ঘটেছে। এটা কোনো সাম্প্রাদায়িক বিরোধ নয়। স্থানীয় সাংসদ ও ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপিকে নিয়ে যারা বিভিন্ন মাধ্যমে অপ-প্রচার ছড়িয়েছে। তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মৃণাল কান্তি ধর বলেন, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপির নির্দেশে বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদ ও স্থানীয় কিছু ব্যক্তির মাঝে ভূমি বিরোধ নিয়ে মারামারি ঘটনায় সমঝোতার সিদ্ধান্ত হয়। এটি কোনো সাম্প্রাদায়িক ঘটনা নয়। সনাতনী ধর্মের সকলকে অনুরোধ জানাবো এটা নিয়ে যেন কোনো ধরণের অপ্রচার না চালায়। যদি কোনো এরকম মিথ্যা অপ্রচার করে তাদের বিরুদ্ধে সংগঠনের পক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ জোবায়ের আহমেদ বলেন, বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদ ও স্থানীয়দের মারামারি ঘটনার বৈঠকে উভয়ের কাগজপত্র পর্যালোচনা করে আগামী বৃহস্পতিবার কাগজপত্র দেখে সঠিক পরিমাপ করে উভয় পক্ষকে জায়গা বুঝিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গ, গত শুক্রবার সকালে উপজেলার বৈরাগ ইউনিয়নের বন্দর কমিউনিটি সেন্টার এলাকায় জায়গা দখল নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ ও স্থানীয়দের বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের মারামারির ঘটনায় ঘটে। এতে ১ পুলিশসহ উভয় পক্ষের ৩০ জন আহত হয়েছে।

মতামত দিন