সাংবাদিককে হুমকি দেয়ায় লোহাগাড়ায় হত্যা মামলার চার্জশিট ভুক্ত আসামী এরশাদের বিরুদ্ধে থানায় জিডি

লোহাগাড়া প্রতিনিধি: (চট্টগ্রাম)

অপ-সাংবাদিকতার প্রতিবাদ করায় চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলায় কর্মরত সংবাদকর্মীদের সংগঠন “লোহাগাড়া সাংবাদিক ফোরাম” এর সভাপতি প্রবীণ সাংবাদিক এম এম আহমদ মনির এর উপর হামলা ও “লোহাগাড়া সাংবাদিক ফোরাম” এর সদস্যদের হত্যার হুমকির অভিযোগে সাংবাদিক নামধারী হত্যা মামলার চার্জশিট ভুক্ত আসামী পদুয়া ইউনিয়নের ডোয়ার আলী সিকদার পাড়ার তজু মিয়ার পুত্র মোহাম্মদ এরশাদ হোসাইন প্রকাশ (খুনি ল্যাং এরশাদ) এর বিরুদ্ধে লোহাগাড়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী রুজু করা হয়েছে। লোহাগাড়া থানার সাধারণ ডায়েরী নাম্বার-৭৮৫।

সাধারণ ডায়েরী সুত্রে জানা যায় পদুয়া ইউনিয়নের ডোয়ার আলী সিকদার পাড়ার তজু মিয়ার পুত্র মোহাম্মদ এরশাদ হোসাইন লোহাগাড়া থানায় ৩০/১১/২০১৬ ইং দায়েরকৃত দন্ডবিধি ৩০২/৩৪ হত্যা চার্জশিটভুক্ত আসামী ও বিভিন্ন চাঁদাবাজি মামলার আসামী হয়। সে হত্যা ও চাঁদাবাজি মামলা থেকে রেহাই পেতে আইনের চোখকে ফাকি দেওয়ার লক্ষে নিজের পরিচয় গোপন রেখে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষার জনপ্রিয় অনলাইন চ্যানেল সি-প্লাস এর প্রতিনিধি হিসেবে যোগদান করে। এরপর থেকে সে সি-প্লাসকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে এবং নিজের প্রতিষ্ঠিত সালো টিভি নামের নিবন্ধন বিহীন অনলাইন পত্রিকার নাম ভাঙ্গিয়ে চাঁদাবাজি, দখলবাজি, নিউজ করার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায় করা, মানুষকে হুমকি-ধমকি সহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছিল। ইতিপূর্বে উপজেলার চরম্বায় বিভিন্ন ইটভাটায় চাঁদাবাজি করতে গিয়ে নাজেহাল হয় যার স্বপক্ষে প্রমান দিবেন চরম্বার ব্রিকফিল্ড মালিক শাহআলম কোম্পানী। এছাড়াও সে পূর্বে বাংলাদেশের স্বাধীনতা বিরোধী রাজনৈতিক দল জামায়াত ইসলামীর সাপোর্টার হওয়ার পরও আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর সাংবাদিকতার সাইনবোর্ডকে কাজে লাগিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাগ্নে শেখ ফজলুল হক মনির হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের লোহাগাড়া উপজেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়। এরপর থেকে লোহাগাড়া উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাংবাদিক পরিচয়ে সে বেপরোয়া ভাবে বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজি সহ অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে।

মানুষজন তাঁর বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ডের কথা অপ-সাংবাদিকতা রুখে দেওয়ার প্রত্যয় নিয়ে গঠিত সংবাদকর্মীদের সংগঠন লোহাগাড়া সাংবাদিক ফোরাম এর সকল সদস্যদের জানালে আমরা তাদের আইনের আশ্রয় নেওয়ার পরামর্শ প্রদান করি। হত্যা ও চাঁদাবাজি মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামী মোহাম্মদ এরশাদ হোসাইন লোকজনের কাছে নিজেকে লোহাগাড়া উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাংবাদিক পরিচয় দেওয়ার কারণে অসহায় ও ভুক্তভুগী মানুষেরা আইনের আশ্রয় নিতে সাহস পায়নি। লোহাগাড়া সাংবাদিক ফোরাম এর সদস্যদের কাছে বিভিন্ন মানুষজন তাঁর এসব অপরাধমূলক কর্মকান্ডের কথা জানিয়েছে জানতে পেরে সে বিভিন্ন মানুষজনকে আমাদের নামে আজেবাজে মন্তব্য করে, নিজে একজন চার্জশিটভুক্ত অপরাধী হওয়া সত্বেও লোহাগাড়া সাংবাদিক ফোরাম এর সদস্যদের গালিগালাজ ও বিভিন্ন ধরণের হুমকি-ধমকি প্রদান সহ তাঁর ক্যাডার বাহীনি দিয়ে প্রাণে মেরে ফেলার ভয় দেখায়। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে আমিরাবাদ বটতলী স্টেশনে ২২ শে মে রাতে লোহাগাড়ার সাংবাদিকতার বাতিঘর হিসেবে পরিচিত ব্যক্তি দৈনিক পুর্বকোন পত্রিকার প্রতিনিধি প্রবীণ সাংবাদিক লোহাগাড়া সাংবাদিক ফোরাম এর সম্মানিত সভাপতি এম এম আহমদ মনিরকে শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করে এবং লোহাগাড়া সাংবাদিক ফোরাম এর সকল সদস্যদের মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে।

সাধারণ ডায়েরীতে লোহাগাড়া উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাংবাদিক পরিচয় দানকারী হত্যা ও চাঁদাবাজি মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামী মোহাম্মদ এরশাদ হোসাইনকে আইনের আওতায় আনার অনুরোধ জানানো হয়।

মতামত দিন