ঈদ সালামি না পেয়ে মিরসরাইয়ে মাদরাসা ছাত্রীর আত্মহত্যা!

মিরসরাই প্রতিনিধি:

মিরসরাইয়ে বাবা ঈদের সালামি না দেয়ায় অভিমান করেছেন ফ্যানের সাথে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মাহত্যা করেছে মাইমুনা আক্তার নামে (১৫) এক কিশোরী। বুধবার (২৭ মে) দুপুরে উপজেলার ১৫ নং ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ ওয়াহেদপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। নিহম মাইমুনা রাজশাহী শহরের আমচত্বর এলাকার ছালাফিয়া মহিলার মাদ্রাসার ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী। সে মিরসরাই উপজেলার মিঠাছড়া এলাকার ধনকাজী ভূঁইয়া বাড়ির মোঃ মহিউদ্দিনের মেয়ে।

নিহত মাইমুনার মামা মোঃ সাইদুল ইসলাম সাইদি জানান, বুধবার সকালে তার বাবা ছোট দুই ভাই বোনকে ঈদ সালামি দেয় দেয় ২০০ টাকা। মায়ের কাছে জানতে চায় তার জন্য দিয়েছে কিনা? তার জন্য ঈদ সালামি দেইনাই শুনে ঘরের ভেতর গিয়ে দরজা বন্ধ করে সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে ঘরের দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে তার ঝুলন্ত লাশ দেখা যায়। পুলিশে খবর দিলে তারা লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে। সাইদি আরো জানান, মাইমুনাদের বাড়ি মিঠাছড়ায় হলেও তার বাবার ব্যবসার সুবাধে তারা রাজশাহীতে থাকতো। কয়েক মাস পূর্বে ব্যবসার অবস্থা খুব ভালো না হওয়ায় আমাদের বাড়িতে চলে আসে। তারা এখন আমাদের বাড়িতে থাকে তারা।

তবে এলাকার কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, প্রেম সংক্রান্ত কারণে ওই মেয়ে আত্মহত্যা করেছে।

এই বিষয়ে মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান পিপিএম বলেন, এক কিশোরীর আত্মহত্যার খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। পরিবার বলছে ঈদ সালামি না পাওয়ায় সে আ‏ত্মহত্যা করেছে। তবে আত্মহত্যা কিনা আমরা নিশ্চিত নই। লাশের ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসার পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। লাশের ময়নাতন্তের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

মতামত দিন