নানিয়ারচরে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের মাঝে সেনাবাহিনীর ত্রাণ বিতরণ

ইকবাল হোসেন, রাঙামাটি ||

চলমান করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউনের ফলে অসহায় হয়ে পড়েছে নানিয়ারচর এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। দীর্ঘদিন ধরে দোকানপাট বন্ধ থাকায় আয়ের উৎস বন্ধ হয়ে যায়। ফলে পরিবার-পরিজন নিয়ে অসহায় অবস্থায় অত্যন্ত দুর্বিষহ জীবন যাপন করছে।

রবিবার (৩১শে মে) সকাল সাড়ে ১০টায় অসহায় হয়ে পড়া এসব ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন নানিয়ারচর জোন কমান্ডার লে. কর্ণেল মো. কাইয়ুম হোসেন (পিএসসি)।

অনুষ্ঠানে অন্যান্নদের মধ্যে সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা, স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার প্রিয়তোষ দত্ত ও সেনা সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নানিয়ারচর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গনে সামাজিক দূরত্ব মেনে তালিকাভুক্ত এসব ব্যবসায়ীদের মাঝে চাল, ডাল, তৈল, পেয়াজ, সূজি, বিস্কুটসহ নিত্যপণ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে লে. কর্ণেল কাইয়ুম বলেন, “আপনারা জানেন, সরকার লকডাউন শিথিল করেছে। উপজেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী ও পুলিশের পক্ষ থেকে আপনাদের সচেতনতা করতে নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখন লকডাউন শিথিল হওয়ায় আপনারা যদি অসচেতন হয়ে চলাফেরা করেন, গনহারে আক্রান্ত হয়ে পড়বেন।”

তিনি আরও বলেন, আপনারা নিজ থেকে সচেতন হতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাচলেরও আহ্বান জানান তিনি।

এসময় সুবিধাভোগী এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) জানান, আঞ্চলিক রাজনৈতিক কারনে দীর্ঘদিন নানিয়ারচরে হাট বাজার বন্ধ। এরই মধ্যে দীর্ঘ আড়াই মাস লকডাউনের ফলে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের জনজীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে। সেনাবাহিনী থেকে এই ত্রাণ সামগ্রী পেয়ে আমরা খুবই খুশি।

উল্লেখ্য, বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কারণে নানিয়ারচর এলাকার এসব সুবিধা বঞ্চিত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা আর্থিক সংকটের কারণে অনাহারে-অর্ধাহারে দিনাতিপাত করলেও ত্রাণ সামগ্রীর জন্য তারা স্থানীয় বেসামরিক প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের শরণাপন্ন হয়নি।

তাই নানিয়ারচর জোন কর্তৃক সরেজমিনে খোঁজ খবর নিয়ে এই সংকটাপন্ন অবস্থায় ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে তাদের পাশে দাঁড়ানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

মতামত দিন