টেকনাফে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে এক রোহিঙ্গা ডাকাত নিহত হয়েছে।

সূত্রে জানা যায়, ৭জুন (রবিবার) গভীর রাতের দিকে পুলিশ গোপন সংবাদে জানতে পারে শীর্ষ রোহিঙ্গা ডাকাত জকির ও তার সহযোগীরা অপরাধ সংঘটিত করার জন্য অস্ত্র-স্বস্ত্র নিয়ে টেকনাফের হ্নীলা নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প এবং শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাঝামাঝি এলাকায় অবস্থান নিয়েছে।

উক্ত সংবাদের তথ্য অনুযায়ী, (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশের নির্দেশক্রমে এসআই জামশেদের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল অভিযানে গেলে ডাকাত দলের সদস্যরা উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ী গুলিবর্ষণ শুরু করে। ডাকাত দলের ছোঁড়া গুলিতে এএসআই আমিরসহ পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়। এরপর আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। একপর্যায়ে ডাকাত দলের সদস্যরা পিছু হটে পালিয়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসার পর পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক যুবককে উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল বরাবরে রেফার করে। সেখানে পৌছার পর দায়িত্বরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করে।

ক্যাম্পে থাকা রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে পুলিশ জানতে পারে গোলাগুলিতে মারা যাওয়া যুবক হচ্ছে, শালবাগান ২৬নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বল্ক ডি-১ বসবাসকারী মোঃ সালামের পুত্র মোঃ শরিফ(২৬)।

এদিকে পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থল তল্লাশী করে দেশীয় তৈরী ২টি এলজি অস্ত্র,৭ রাউন্ড তাজা কার্তুজ এবং ৮ রাউন্ড কার্তুজের খালীখোসা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করে (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন পুলিশের সাথে গোলাগুলিতে নিহত শরীফ ডাকাত শীর্ষ ডাকাত জকির গ্রুপের অন্যতম সদস্য।

তিনি আরো বলেন, গহীন পাহাড়ে লুকিয়ে থাকা রোহিঙ্গা ডাকাত দলকে নির্মুল করার জন্য পুলিশের চলমান এই যুদ্ধ অব্যাহত থাকবে।

মতামত দিন