কাপ্তাই-চট্টগ্রাম সড়কে স্বয়ংক্রিয় জীবাণুনাশক টানেল স্থাপন পরিদর্শনে দীপংকর তালুকদার

নূর হোসেন মামুন, কাপ্তাই ||
রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার কাপ্তাই উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিনের ব্যক্তিগত উদ্যোগে কাপ্তাই-চট্টগ্রাম সড়কের ‘ষ্টিল ব্রিজ’ সংলগ্ন এলাকায় প্রশান্তি পর্যটন কমপ্লেক্সের সামনে স্বয়ংক্রিয় ষ্প্রে মেশিনের সাহায্যে জীবাণুনাশক টানেল স্থাপন করা হয়েছিল গত ২ জুন। প্রতিদিন শত শত যানবাহনে এই স্প্রে করা হচ্ছে। এই কাজে ইতিমধ্যে যাত্রী সাধারনের প্রশংসা অর্জন করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার (১৬ জুন) দুপুরে রাঙামাটি সাংসদ দীপংকর তালুকদার এমপি এই টানেল পরিদর্শনে এসে উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিনের এই কাজের প্রশংসা করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য প্রকৌশলী থোয়াইচিং মং মারমা, কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুল হক, কাপ্তাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেল, কাপ্তাই উপজেলা আ.লীগের সভাপতি অংসুইছাইন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহীম খলিল, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান উমেচিং মারমা, কাপ্তাই থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নাসির উদ্দীন সহ আরও অনেকে।

জীবাণুনাশক টানেল স্থাপনকারী কাপ্তাই উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি এই প্রতিবেদকে বলেন, কাপ্তাই পানি বিদ্যুৎ কেন্দ্র, কর্ণফুলী পেপার মিলস, পর্যটন এলাকাসহ নানা কারনে কাপ্তাই একটি গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা। এই এলাকায় প্রতিদিন দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের আগমন ঘটে, তাই সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি ও করোনার বিস্তার রোধে তিনি স্বপ্রণোদিত হয়ে এই উদ্দ্যোগ গ্রহণ করেন।

তিনি জানান, ২১টি স্বয়ংক্রিয় ষ্প্রে মেশিনের সাহায্যে প্রতিদিন ব্লিচিং পাউডার ও হাইড্রোজেন পার অক্সাইড মিশ্রিত করে ৫ হাজার ছয়’শ লিটার জীবাণুনাশক ছিটানো হচ্ছে। এই প্রকল্প স্থাপন করতে তার আনুমানিক ৪০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। পাম্পের সাহায্যে পানি উত্তোলন, ক্যামিকেল মিশ্রন, রক্ষণা বেক্ষন ও বিদ্যুৎ বিল বাবত উদ্দ্যেক্তার প্রতিদিন প্রায় দেড় হাজার টাকা খরচ হচ্ছে। তার এই প্রশংসনীয় উদ্দ্যোগে অনেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

মতামত দিন