আলীকদম উপজেলা আ.লীগে বিরোধের জের : শোক দিবসে আলাদা কর্মসূচী পালনের উদ্যোগ

প্রতিনিধি, আলীকদম ||
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সারাদেশের মত বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় উপজেলা প্রশাসন এবং দলীয় ভাবে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে শোক দিবস পালন করেন। তারই ধারাবাহিকতায় জাতীয় শোক দিবস পালিত হলেও এবারের চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। এবার উপজেলা আওয়ামী লীগ,মহিলা আওয়ামী লীগ, কৃষক লীগের একাংশ ও অঙ্গ সংগঠন কৃষক লীগের একাংশ, যুবলীগ,স্বেচ্ছাসেবক লীগ,শ্রমিক লীগ,ছাত্রলীগ আলাদা ভাবে জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে।
জাতীয় শোক দিবস পালনকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে প্রতিযোগিতা, নেতাকর্মীর উপস্থিতি, সবমিলিয়ে কারা কার চেয়ে ভাল করবে সেটিই এখন মূখ্য বিষয় হয়ে উঠছে। তাই আলীকদম উপজেলায় সবার আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে পরিণত হয়েছে জাতীয় শোক দিবস। এরইমধ্যে শুক্রবার (১৪ আগষ্ট) বিকালে সম্পূর্ণ আলাদাভাবে আগামী কালকের (১৫ আগষ্ট) এর কর্মসূচী নিয়ে প্রস্তুতি সভা করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের গৃহীত কর্মসূচী হলো, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে শোক র্যালী, শ্রদ্ধা নিবেদন,বৃক্ষ রোপণ ও চারা বিতরণ, দলীয় কার্যালয়ে দোয়া মাহফিল,মন্দিরে প্রার্থনা ও সন্ধ্যায় বৌদ্ধ বিহারে বিশেষ প্রার্থনা।
সহযোগী সংগঠনের গৃহীত কর্মসূচী হলো, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে শোক র্যালী ( আলাদা),শ্রদ্ধা নিবেদন,বৃক্ষ রোপণ,দোয়া মাহফিল ও কাঙ্গালি ভোজ (সামাজিক দূরত্ব বজায়),ছাত্রলীগের প্রদীপ প্রজ্বলন।
৬ সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে মংশোথোয়াই মার্মা,শুভ রঞ্জন বড়ুয়া,আনোয়ার জিহাদ চৌধুরীর,সৌরভ পাল ডালিম বলেন,আমরা আমাদের মত করে জাতীয় শোক দিবস পালন করছি, পাশাপাশি স্ব স্ব সংগঠনের জেলা পর্যায়ে গৃহীত কর্মসূচীও পালন করা হবে।
এই বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগ গৃহিত কর্মসূচীতে অংশ গ্রহনের কোন নির্দেশনা বা বলা হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তারা জানান, উপজেলা আওয়ামীলীগ আমাদের কাউকে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উনাদের গৃহীত কর্মসূচীতে অংশগ্রহনে বিষয়ে কিছু বলেন নি।তাই আমরা আলাদা কর্মসূচী পালন করছি।
তৃণমূল পর্যায়ে নেতাকর্মীরা জানান, গ্রুপিংয়ের কারণে আগের চেয়ে তাদের মূল্যায়ন বেশী হচ্ছে। এখন সবাইকে কর্মসূচী গুলোতে অংশগ্রহণ করতে বলা হয়েছে। তবুও আমরা চাই গ্রুপিংয়ের অবসান হোক।
গত ফেব্রুয়ারী থেকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাথে সহযোগী সংগঠনের ৬ নেতার দূরত্ব ও মনোমালিন্য চলছে। এরইমধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে একপক্ষ অন্যপক্ষকে ঘায়েলের চেষ্টা করে। এরইমধ্যে সদরে ৩০ কেজি ভিজিডি চাউল ভিতরণ কে কেন্দ্র করে ফেসবুকের দুইটি ফেক আইডি থেকে কিছু ছবি প্রকাশিত হয়। এরই জের ধরে গত ২২শে এপ্রিল সহযোগী সংগঠনের ৬ জন নেতাকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সকল কার্যক্রম থেকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন আলীকদম উপজেলা আওয়ামী লীগ।
অবাঞ্ছিত নেতারা হলেন, কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মংচিংথোয়াই মার্মা ও সাংগঠনিক সম্পাদক নাজিম উদ্দীন এলামূল,স্বেচ্ছাসেবক লীগের শুভ রঞ্জন বড়ুয়া, শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃশামশুল আলম,যুব লীগের সভাপতি আনোয়ার জিহাদ চৌধুরী,ছাত্র লীগের সভাপতি সৌরভ পাল ডালিম।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দুংড়িমং মার্মা দকে বলেন- আওয়ামী লীগ, মহিলা লীগ, কৃষকলীগের নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণে কর্মসূচীগুলো পালন করা হবে। বাকী সংগঠনগুলো কি আপনাদের (উপজেলা আওয়ামী লীগ) এর সাথে অংশগ্রহণ করবে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন,সহযোগী সংগঠনের ৬ জন নেতাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়েছে, সংগঠনকে নয়। সংগঠনের অন্যদের সাথে কোন সমস্যা নেই। সগযোগী সংগঠনের অনেকে অংশগ্রহণ করবে

মতামত দিন