৮ বছরের শিশুকে ব্লেড দিয়ে এঁকে নির্যাতনের ঘটনায় সৎ মা কারাগারে

ব্লেড দিয়ে এঁকে ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে শিশু নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত সৎ মা নিশু আকতারকে (২৬) গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

আসামি নিশুকে আজ বুধবার কারাগারে পাঠানো হয় বলে জানান চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পটিয়া সার্কেল) মো. তারিক রহমান।

নিশু আকতার পটিয়া উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের রশিদাবাদ গ্রামের রিক্সাচালক মো. নাজিম উদ্দিনের দ্বিতীয় স্ত্রী।

পুলিশ জানান, শোভনদন্ডী ইউনিয়নের রশিদাবাদ গ্রামের রিকশা চালক নাজিম উদ্দিনের প্রথম স্ত্রীর মারা যায়। তার প্রথম সংসারে একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। রিকশা চালকের দ্বিতীয় স্ত্রী নিশু প্রায়সময় শিশু মায়শা আকতারকে (৮) ব্লেড দিয়ে এঁকে ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে শারীরিকভাবে নির্যাতন করতেন।

গতকাল মঙ্গলবার শিশুটির মাথাও ফেটে দেয়। এরপর স্থানীয়রা শিশুটিকে উদ্ধার করে দুপুরে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। বিষয়টি জানতে পেরে পটিয়া থানা পুলিশ তৎপরতা শুরু করে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পটিয়া সার্কেল) মো. তারিক রহমান বলেন, অমানবিকভাবে শিশু নির্যাতনের ঘটনায় থানায় শিশুটির পিতা নাজিম উদ্দিন বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। এরপর মঙ্গলবার রাতে নিশুকে তার বাবার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ বুধবার তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মতামত দিন