ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে লক্ষ্মীপুরে বিধবাকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম!

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ঘরের সিঁধ কেটে ঢুকে এক বিধবাকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা নিয়ে দুর্বৃত্তরা পালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে সদর উপজেলার ২ নং দক্ষিণ হামছাদী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের জলিল হাজি বেপারি বাড়ির মৃত বাবুলের স্ত্রী রেনু বেগম (৩৫) কে জায়গা জমি বিষয়ক পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বৃহস্পতিবার রাত তিনটার দিকে একই বাড়ির শাহাবুদ্দিনের ছেলে সোহাগ ও তার সাঙ্গোপাঙ্গ নিয়ে ঘরে সিঁধ কেটে প্রবেশ করে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এতে ব্যর্থ হয়ে সোহাগ বিধবার রেনু বেগমকে পিটিয়ে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম করে। সোহাগ ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা এ সময় আট আনা ওজনের সোনার চেইন, কানের দুল ও নগদ ৫০ হাজার টাকা নিয়ে যায় বলে রেনু বেগম জানান।

এ বিষয়ে সফিক উল্যাহ বলেন চিৎকার শুনে আমরা এসে দেখি সোহাগ ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে দেখি ঘরের সিঁধ কেটে ঢুকেছে তারা। ধর্ষণ করতে ব্যর্থ হয়ে মারাত্মক ভাবে পিটিয়েছে রেনু বেগমকে। স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা নিয়েছেন বলেও তিনি জানান।

বিধবা রেনু বেগম এর মেয়ে ফাহিমা আক্তার কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন -‘আমরা ঘুমিয়ে ছিলাম, হঠাৎ আমার আম্মুর চিৎকার শুনে জেগে দেখি সোহাগ ও তার সাথে কয়েকজন লোক আম্মুর সাথে ধস্তাধস্তি করে, পিটায়। এ আগেই তারা গলার চেইন, কানের দুল নিয়ে যায়। আমরা চিৎকার দিলে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তারা দৌড়ে পালিয়ে যায়।’

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মীর শাহ আলম বলেন- ‘আমি ঘটনাটি শুনেছি, আহত রেনু বেগমকে চিকিৎসা নিতে পরামর্শ দিয়েছি, পরে বিষয়টি মিটমাট করা হবে।’

সদর মডেল থানার ওসি একেএম আজিজুর রহমান বলেন -‘এখনো অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান রেনু বেগম এর বোন মাহমুদা।

মতামত দিন