দক্ষিন আফ্রিকায় ৬ মাস পর ১ অক্টোবর থেকে আর্ন্তজাতিক বিমান চলাচল শুরু

শওকত বিন আশরাফ।।দক্ষিন আফ্রিকা থেকে।।

দক্ষিন আফ্রিকায় করোনা মহামারীর কারণে দীর্ঘ ৬ মাস আর্ন্তজাতিক ফ্লাইট চলাচল বন্ধ থাকার পর আগামীকাল ১ অক্টোবর থেকে খোলে দেওয়া হচ্ছে সকল প্রকার সীমানা সহ দেশের ৩ টি আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দর।সেই সাথে সর্বসাধরণের জন্য উম্মুক্ত হচ্ছে অভিবাসন,পর্যটন,স্বাস্থ্য,পরিবহন এবং সকল দেশের সাথে আর্ন্তজাতিক ফ্লাইট চলাচল।

আজ বুধবার দুপুরে জোহানেসবার্গের মিড়রেন্ডে যোগাযোগ,স্বরাষ্ট্র ও আর্ন্তজাতিক সম্পর্ক মন্রনালয়ের যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেন সংশ্লিষ্ট মন্রীরা।

এইসময় গণমাধ্যমের কাছে যৌথ ব্রিফিংয়ে মন্রীরা বলেন,করোনা মহামারী টেকাতে গত ১৫ মার্চ রাস্ট্রপতি সিরিল রামাপোসা জাতীয় দূর্যোগ ঘোষণা করে এবং ২৬ মার্চ দেশটিতে পঞ্চম স্তরের লকডাউন নীতিমালা ঘোষণা দিয়েছিলেন।বর্তমানে করোনা মহামারী হ্রাস পাওয়ায় অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে সরকার সর্বশেষ আগামীকাল ১ অক্টোবর থেকে আন্তজার্তিক সীমারেখা খোলে দিচ্ছে।

এই সময় আর্ন্তজাতিক সম্পর্ক বিষয়ক মন্ত্রী নেলাড়ি পানডোর বলেছেন,আগামীকাল ১ অক্টোবর থেকে দক্ষিন আফ্রিকায় আর্ন্তজাতিক ভ্রমণকারীদের বেশ কয়েকটি স্বাস্থ্য বিধি নিষেধ মেনে ভ্রমণে আসতে পারবেন।সকল ধরনের মিড়িয়াম এবং লো রিস্কের দেশ থেকে দক্ষিন আফ্রিকা ভ্রমণ করার সময় পিসিআর(পলিমারোজ চেইন প্রক্রিয়া)পরীক্ষার রিপোর্ট ও কভিড়-১৯ পরীক্ষার রিপোর্ট সাথে থাকতে হবে যা ভ্রমনকারী ভ্রমণের সময় থেকে ৭২ ঘন্টার মধ্যে দক্ষিন আফ্রিকায় আসতে হবে।ভ্রমণকারীর অবশ্যই ট্রাভেল ইন্সুইরেন্স থাকতে হবে।কোন ভ্রমনকারী এয়ারপোর্টে আসার পর আবার পুনরায় থাকে পরীক্ষা করে কোন যাএীর করোনার উপসর্গ পাওয়া গেলে থাকে নিজ খরছে ১০ দিনের কোয়ারান্টাইনে থাকতে হবে।
মন্রী আরো জানিয়েছেন,এই সময় সীমিত আকারে বন্দর ও ল্যান্ড সীমানা খোলা হবে।

ইন্ডিয়া, ইরোপের বেশ কিছু দেশ, লন্ডন, আমেরিকা,রাশিয়া,ব্রাজিল নেপাল ওমান,নেদারল্যান্ডস কুয়েত সহ সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ হওয়া দেশ গুলো থেকে সাধারণ কোন যাএী দক্ষিন আফ্রিকা আসতে পারবেনা। ঐ সব দেশ থেকে শুধুমাত্র কূটনীতিক, বিনিয়োগকারী এবং পেশাদার ক্রীড়া এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া ব্যক্তি সহ দুর্লভ এবং সমালোচনামূলক দক্ষতাযুক্ত ব্যবসায়িক ভ্রমণকারীরা একই স্বাস্থ্য প্রোটোকল স্ক্রিনিংয়ের মধ্য দিয়ে আসতে পারবে।

স্বরাষ্ট্র মন্রী ডাঃএ্যারণ মোটসোলাড়ি জানিয়েছেন,দক্ষিন আফ্রিকায় যে সকল অভিবাসীর বিভিন্ন ক্যাটাগরির বৈধ ভিসা রয়েছে এবং লকডাউনের সময় মেয়াদ উওীর্ণ হয়েছে তাদের ভিসার মেয়াদ আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

দেশের যে তিনটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ভ্রমণের জন্য উম্মুক্ত করা হবে,তাহলো ওআর ট্যাম্বো ইন্টারন্যাশনাল (জোহানেসবার্গে)কেপটাউন ইন্টারন্যাশনাল (কেপটাউনে) কিং শাকা ইন্টারন্যাশনালের (ডারবান)।

অপরদিকে যোগাযোগ মন্ত্রী ফিকিলে মাবাবুলা জানিয়েছেন,দেশের ৩৫টি স্হল সীমানার মধ্যে শুধুমাত্র আফ্রিকা মহাদেশের নির্দিষ্ট কয়টি দেশের সাথে যোগাযোগের জন্য ১৮ টি সীমানা খোলা হবে বাকী ১৭ টি সীমানা বন্ধ থাকবে।

মতামত দিন