সিলেটে পুলিশের নির্যাতনে যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ

সিলেটে পুলিশের নির্যাতনে রায়হান আহমদ (৩৪) নামে এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। রোববার (১১ অক্টোবর) ভোরে তার মৃত্যু হয়।

তবে পুলিশের দাবি, রোববার নগরীর কাস্টঘর এলাকায় ওই যুবক ছিনতাই করতে গিয়ে গণপিটুনিতে মারা গেছে। তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা রয়েছে। ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

নিহত রায়হান নগরীর আখালিয়া এলাকার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি সিলেট স্টেডিয়াম মার্কেটে ডা. আব্দুল গফফারের চেম্বারে চাকরি করতেন।

পুলিশের নির্যাতনে রায়হানের মৃত্যুর খবর জানার পর বিকেলে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের আখালিয়া এলাকায় রাস্তা অবরোধ করেন স্থানীয়রা। সেখানে টায়ার জ্বালিয়ে প্রতিবাদ জানানো হয়।

নিহত যুবকের সৎবাবা হাবিবুল্লাহ ও মা সালমা বেগম জানিয়েছেন, রায়হানকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। চেম্বার থেকে রাতে ফিরতে দেরি দেখে রায়হানকে ফোন করা হলে নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়। ভোরে রায়হান অন্য নম্বর থেকে ফোন করে মাকে জানান, তিনি বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে আছেন। তার কাছে ১০ হাজার টাকা ঘুষ চাওয়া হয়েছে। টাকা দিলে পুলিশ তাকে ছেড়ে দেবে। ভোরে পাঁচ হাজার টাকা নিয়ে ফাঁড়িতে গেলে সৎবাবা হাবিবুল্লাহকে নামাজের পর আসতে বলে পুলিশ। পরে জানানো হয়, রায়হানের শরীর খারাপ হওয়ায় তাকে ওসমানী মেডিকেলে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু সেখানে গিয়ে রায়হানের লাশ মর্গে দেখতে পান তিনি।

নিহতের মামাতো ভাই আব্দুর রহমান অভিযোগ করেন, রায়হানের হাতের নখগুলো উপড়ে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে। পুলিশ ফাঁড়িতে তাকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। তিনি যদি গণপিটুনিতে মারা যেতেন তাহলে তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন থাকত।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (মিডিয়া) জ্যোতির্ময় সরকার বলেন, নিহতের পরিবারের অভিযোগ তদন্তে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ জড়িত থাকলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কোতোয়ালি থানার ইন্সপেক্টর সৌমেন মিত্র জানান, রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত এ ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করা হয়নি।

মতামত দিন