৭ই নভেম্বরের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে সরকার পতন ও খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়ার আহবান


জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম, চট্টগ্রাম এর উদ্যোগে আজ রবিবার সমিতির ৩নং মিলনায়তনের ৭ই নভেম্বর বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে সংগঠনের সভাপতি এড. এ.এস.এম বদরুল আনোয়ারের সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এড. মোহাম্মদ মুরশিদ আলমের সঞ্চালনায় এবং সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. নুরুল করিম এরফানের সার্বিক সহযোগীতায় এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য এড. দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী, এড. মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, এড. কফিল উদ্দিন চৌধুরী, এড. আবদুস সাত্তার সরোয়ার, এড. রফিক আহমদ, এড. এনামুল হক, এড. সেকান্দর বাদশা, এড. কামরুল ইসলাম সাজ্জাদ, এড. রৌশন আরা বেগম, এড. জহুরুল আলম, এড. এইচ.এস আবুল হাসান, এড. সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, এড. এস এম ফোরকান, এড. আজিজুল হক চৌধুরী, এড. ফৌজুল আমিন চৌধুরী, এড. মুহাম্মদ কবির হোসেন, এড. কাশেম কামাল, এড. দেলোয়ার হোসেন, এড. আবু তাহের, এড. ইফতেখার মহসিন, এড. জালাল উদ্দীন পারভেজ, এড. নজরুল ইসলাম, এড. সারোয়ার হোসেন, এড. ইকবাল হোসেন, এড. জাহেদ বিন রশিদ, এড. সুজাউদ্দিন সুজা, এড. অঞ্জন প্রসাদ, এড. সালাউদ্দিন তুষার, এড. তৌহিদ হোসেন শিকদার, এড. মোঃ আলী ইয়াছিন, এড. কাজী হাসান, এড. লোকমান শাহ, এড. সৈয়দ আহাম্মদ, এড. আবু তাহের প্রমুুখ।

বক্তরা বলেন- ১৯৭৫ সনের ৭ই নভেম্বর বাংলাদেশের ইতিহাসের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষার ঐতিহাসিক একটি দিন। সেই দিন ভারতীয় আধিপত্যবাদের ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দিয়ে দেশপ্রেমিক সৈনিক ও জনতা ইস্পাত কঠিন ঐক্যের মাধ্যমে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে বন্দীদশা থেকে মুক্ত করেন। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান তৎপরবর্তী রাষ্ট্রক্ষমতায় অধিষ্টিত হয়ে এদেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র, বাংলাদেশীয় জাতীয়তাবাদ, স্বাধীন সংবাদপত্র ও মানুষের মৌলিক অধিকার ফিরিয়ে দেন এবং এদেশের গ্রামে-গঞ্জে সাধারণ মানুষ কৃষক শ্রমিক জনতার সহিত মিলে মিশে একাকার হয়ে এই উপমহাদেশের একজন জনপ্রিয় নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেন। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে বি.এন.পি আজ বাংলাদেশের বৃহৎ রাজনৈতিক দল। বি.এন.পি-র জনপ্রিয়তায় বর্তমান সরকার ভীত সন্ত্রস্থ’ হয়ে বি.এন.পি-কে নিশ্চিন্ন করার জন্য বি.এন.পি নেতাকর্মীদের উপর জুলুম নির্যাতন, মামলা-হামলা চালিয়ে যাচ্ছেন। এমন পরিস্থিতিতে নেতৃবৃন্দরা জাতীয়তাবাদী শক্তিকে ৭ই নভেম্বরের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সরকার পতনের আন্দোলনে শরীক হওয়ার উদ্যাত্ত আহবান জানান।

মতামত দিন