ফ্রান্সের ইসলাম বিদ্বেষী মনোবৃত্তি বিশ্ব মুসলিমকে আঘাত করেছে: রেজাউল করিম চৌধুরী

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত চসিক মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, রাসুলুল্লাহ (দ.) গোত্রীয় শাসনের স্বৈরাচারে দগ্ধ, মুষ্টিমেয় বিত্তশালীর শোষণে নিঃস্ব, সামাজিক দূরাচারে অতিষ্ঠ মানুষের মুক্তির মাধ্যমে একটি সুস্থ, সুন্দর, স্থিতিশীল ও মানবিক মূল্যবোধের সমাজ প্রতিষ্ঠার ধারক। তিনি বঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে তাওহিদের বাণী প্রচারের দায়ে স্বজাতির নির্যাতনে নিরুপায় হয়ে জন্মভূমি ছেড়ে মদিনায় হিজরতে বাধ্য হয়েছিলেন। অতঃপর ঐতিহাসিক মদিনা সনদ প্রণয়নের মাধ্যমে ইহুদি, পৌত্তলিক, খ্রিস্টান ও মুসলমানদের নিয়ে মদিনাতে একটি স্বাধীন-স্বতন্ত্র জাতি ও সার্বভৌম প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। ইসলাম অন্য ধর্মের প্রতি কোনপ্রকার কটাক্ষকে কস্মিনকালেও সমর্থন করে না। যেথায় অবাঞ্ছিত সামপ্রদায়িকতা একেবারেই পরিত্যাজ্য। কেননা আল্লাহ প্রিয় নবী (দঃ) কে জাতি, ধর্ম, বর্ণ, গোত্র, সম্প্রদায় নির্বিশেষে তাবৎ দুনিয়ার কল্যাণ স্বরূপ প্রেরিত হয়েছেন। তাই বিশ্বব্যাপী ইসলামী পূণর্জাগরণই হোক এবারকার ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.)-এর মূল প্রতিপাদ্য।

সোমবার সকালে বহদ্দারহাটস্থ আর.বি কনভেনশন হলে অনুষ্ঠিত নিকাহ রেজিস্ট্রারদের সর্ববৃহৎ সংগঠন বাংলাদেশ মুসলিম নিকাহ্ রেজিস্ট্রার কল্যাণ সমিতি চট্টগ্রাম জেলাও চট্টগ্রাম ম্যারেজ এন্ড অ্যাসেট্স ম্যানেজমেন্ট লি. (রেজি নং ১৩৪৯৩/১৯) এর যৌথ উদ্যোগে বার্ষিক পাবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিল ও মেজবানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরী।

চট্টগ্রাম জেলা বাংলাদেশ মুসলিম নিকাহ্ রেজিস্ট্রার কল্যাণ সমিতিটর সভাপতি কাজী মাওলানা ইউসুফ আলী চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কাজী মাওলানা সারোয়ারে আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মিলাদ মাহফিলে উদ্বোধক ছিলেন বাংলাদেশ মুসলিম নিকাহ্ রেজিষ্ট্রার কল্যাণ সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি কাজী মামুনুর রশীদ।

তিনি বলেন, ফ্রান্সে বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ (দঃ) কে নিয়ে রাষ্ট্রীয় পৃষ্টপোষকতায় বিরতিহীনভাবে ব্যাঙ্গ চিত্র প্রদর্শনের ন্যাক্কারজনক ঘটনাকে ইতিহাসের জঘন্য বর্বরতা বলে উলে­খ করেন। ফ্রান্সে মুসলমানদের বিরুদ্ধে এহেন জাতিগত নিপীড়ন বিচ্ছিন্ন কিছু নয়, বরং তা এদের চিরায়ত মুসলিম বিদ্বেষি মনোবৃত্তিরই বহিঃপ্রকাশ।

প্রধান আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ মুসলিম নিকাহ্ রেজিস্ট্রার কল্যাণ সমিতির কেন্দ্রীয় মহাসচিব কাজী মাওলানা সাগর আহমদ শাহীন।

তিনি বলেন, ফ্রান্সের মত সভ্য রাষ্ট্রের কাছ থেকে এহেন প্রতিক্রিয়াশীল আচরণ কখনও কাম্য হতে পার না বলে মন্তব্য করে বলেন-এহেন জঘন্য কর্মকান্ড কেবল মুসলিম ধর্মানুভূতিতে আঘাত হানবে তা নয়, বরং বিশ্বব্যাপী জাতিগত সংঘাত ও হানাহানি ছড়িয়ে পড়বে।

মোনাজাত পরিচালনা ও দোয়া পরিচালনা করেন জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার অধ্যক্ষ আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আলকাদেরী, সংবর্ধেয় অতিথি ছিলেন পীরে তরিক্বত কাজী মাওলানা মুহাম্মদ মছিহুদ্দৌলা ও কাজী ইয়াহিয়া চৌধুরী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশনের সভাপতি এডভোকেট জিয়া হাবিব আহসান, কাজী মাওলানা হারুন চৌধুরী, ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক কাজী মাওলানা সোলায়মান চৌধুরী, কাজী আবু জাফর মুনিরী, কাজী মাওলানা শাহাদাতুল ইসলাম, কাজী মুহাম্মদ জামাল উদ্দীন, কাজী ইমামুদ্দীন চৌধুরী, কাজী সাবের আহমদ হেলালী, কাজী সৈয়দ এহসানুল হক মুহাম্মদ আজহার উদ্দীন, কাজী সাকের আহমদ চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন ঈদে মিলাদুন্নবী(দ.) বাস্তবায়ন কমিটির সচিব আলহাজ্ব কাজী হাফিজ আহমদ মোরশেদ, কাজী অধ্যক্ষ মাওলানা আবু ছালেহ, কাজী মাওলানা ইকরামুল হক চৌধুরী, কাজী নুর মুহাম্মদ, কাজী হাসানুল করীম মুনিরী, কাজী গিয়াসুদ্দীন, কাজী আহমদ ছগীর, কাজী আমিনুল ইসলাম বুলবুল, কাজী মুফিজুর রহমান, কাজী আহসানুল আলম প্রমুখ।

মতামত দিন