ছোট ভাইকে কবর দিয়ে এসে বড় ভাইয়েরও মৃত্যু

আগে মারা যাওয়া ছোট ভাইয়ের জানাজা-দাফনের সাড়ে ৩ ঘণ্টা পর মারা গেলেন চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগ নেতা এম এ রশিদ।

বড় ভাই নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এম এ রশিদ এবং তার ছোট ভাই আলকরণ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান। সোমবার রাত ১২টা ৩০ মিনিটে ছোট ভাই ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা আবদুর রহমান মারা যান। আজ মঙ্গলবার দুপুরে পুরাতন রেল স্টেশনে তাঁর জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন করা হয়।
এরপর দুপুর শেষে বিকেল গড়াতেই বিকাল ৫টার দিকে তাঁর বড় ভাই এম এ রশিদ।

প্রয়াত এম এ রশিদ চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের বর্তমান যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং ৩১ নং আলকরণ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক কমিশনার ছিলেন। তার ছোট ভাই আলকরণ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান।

নগর আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শফিকুল ইসলাম ফারুক বলেন, ‘একই দিনে দুই আওয়ামী লীগ নেতা মারা গেছেন, এম এ রশীদ ভাই আগে থেকে অসুস্থ ছিলেন জানতাম। ওনাদের মৃত্যুতে নগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শোক প্রকাশ করছি।’

এদিকে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ৩১নং আলকরণ ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার এমএ রশিদ ও আলকরণ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমানের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো শোক বার্তায় নেতারা বলেন, ‘এম এ রশীদ ও আবদুর রহমান আপাদমস্তক ও নির্মোহ রাজনীতিক। তারা রাজনীতিকে কখনও অর্থবিত্তের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেননি। দলের সকল স্তরের নিবেদিত প্রাণ নেতাকর্মীদের সাথে তাদের নিবিড় সখ্যতা ছিল। তাই তাদের অভাব কখনো আমরা মুছতে পারবো না। তারা দলের নিবেদিত প্রাণ নেতাকর্মীদের কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। এম এ রশীদ ও আবদুর রহমানের মৃত্যুতে গণতান্ত্রিক ও প্রগতিশীল রাজনৈতিক অঙ্গণে অপূরণীয় শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে।’

এম এ রশীদ ও আবদুর রহমানের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা ও তাদের শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী ও আ জ ম নাছির উদ্দীন।

মতামত দিন