প্রযুক্তির সহায়তায় যানজট নিরসনে সময়ের দাবি-এস এম আবু তৈয়ব

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির সভাপতি এস এম আবু তৈয়ব বলেছেন, ‘বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম নগরের অন্যতম সমস্যা যানজট। যানজট জনজীবনে বহুমাত্রিক সমম্যা তৈরি করে। তাই বর্তমানে প্রযুক্তির সহায়তায় যানজটন নিরসনের উদ্যোগ নেওয়া সময়ের দাবি। কারণ এখন চলছে প্রযুক্তির চরম উৎকর্ষের যুগ। প্রযুক্তির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধির এই সময়ে প্রযুক্তিকে শতভাগ কাজে লাগানো প্রয়োজন। কাজটি কিভাবে করতে হবে তা নিয়ে প্রয়োজনীয় পরিকল্পনাও প্রণয়ন করা যায়।’

নগরীর কাজীর দেউড়ি স্কাই রেষ্টুরেন্ট মিলনায়তনে চট্টগ্রাম মহানগর নতুন কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ এনামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন নগর কমিটির সহ-সভাপতি চৌধুরী ফরিদ, লায়ন মোহাম্মদ হাকিম আলী, হাজী মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক শফিক আহমেদ সাজীব, সহ-সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল লিটন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রেজা মুজাম্মেল, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. টিপু শীল জয়দেব, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আন্জুমান আরা বেগম, যুব বিষয়ক সম্পাদক শহীদুল ইসলাম। নির্বাহী সদস্য যথাক্রমে প্রফেসর মোহাম্মদ মনজুরুল কিবরিয়া, আরিচ আহমেদ শাহ, সিরাজুল মনির মানিক, ডাঃ অঞ্জন কুমার দাশ, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, লায়ন আব্দুল মান্নান। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দপ্তর সম্পাদক মোরশেদুর রহমান নয়ন, নির্বাহী সদস্য মীর সাখাওয়াত হোসেন, সনত তালুকদার, রেবা বড়ুয়া প্রমুখ।

সভাপতি এস এম আবু তৈয়ব বলেন, ‘নিরাপদ সড়ক আইন প্রণয়ন হয়েছে। কিন্তু এটির বাস্তবায়ন দেখা যাচ্ছে না। আইন বাস্তবায়ন না হওয়ায় সড়ক যাত্রী সাধারণের জন্য অনিরাপদই থেকে যাচ্ছে। সড়ক নিরাপদ না হলে জনজীবনও নিরাপত্তাহীন হবে। তাই আমরা সরকারের কাছে আবেদন করব, প্রণীত আইন যেন যথাযথ বাস্তবায়ন করা হয়।’

এস এম আবু তৈয়ব বলেন, ‘সরকার বা কোন একটি পক্ষ সচেতন হলেই সড়ক কখনো নিরাপদ হবে না। এদেশের প্রতিটি মানুষকেই সচেতন হতে হবে। প্রত্যেককে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সর্বোচ্চ সচেতন ও সতর্ক থাকতে হবে। কেবল চালক বা মালিক বা যাত্রী বা পথচারি সচেতন হলে সড়ক দূর্ঘটনা কমবে না। কারণ বিষয়টির সঙ্গে সব পক্ষের সরাসরি সম্পৃক্ততা আছে। তাই প্রত্যেককেই সচেতন এবং আইন মেনে সড়ক ব্যবহার করতে হবে।’

তিনি বলেন, বর্তমানে সড়ক ব্যবস্থাপনায় ট্রাফিক পুলিশ আছেন মাত্র ৮০ জন। আমি বলব, ৮০ জন নয় ৮০০ বা ৮০ হাজার দিয়েও ট্রাফিক ব্যবস্থা নিয়ন্ত্রণ বা যানজট নিরসন সম্ভব নয়। তাই যানজটন নিরসনে প্রয়োজন সম্মিলিত উদ্যোগ, প্রয়োজন সবার সরব ও আন্তরিক সহযোগিতা।

মতামত দিন