নিখোঁজের একদিন পর মিললো নদীতে মিললো যুবকের লাশ


এম মাঈন উদ্দিন, মিরসরাই (চট্টগ্রাম):
মিরসরাইয়ে নিখোঁজের একদিন পর ফেনী নদীর হিঙ্গুলীর খাল থেকে ইকবাল হোসেন রনি (২০) নামের এক শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবরী দল। তার বাড়ি উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ অলিনগর গ্রামে। মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) বিকাল সাড়ে ৩টার নাগাদ স্থানীয় হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ফেনী নদীর মধ্যম আজমনগর অংশ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সুস্থ্য সবল টগবগে যুবক বালু উত্তোলনের শ্রমিক ইকবালের রহস্যজনক মৃত্যু নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে কৌতুহল সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, স্থানীয় কিছু লোকজন অবৈধভাবে ফেনী নদীর স্থানীয় অংশ থেকে বালু উত্তোলন করে। নিহত ইকবাল বালু উত্তোলনে ব্যবহৃত ড্রেজারে দৈনিক শ্রমিক হিসেবে কাজ করে। গত সোমবার (১৬ নভেম্বর) সকালে কর্মরত অবস্থায় সে নিখোঁজ হয়। পরে অনেক খোঁজাখুঁজির পরও তার হদিস পাওয়া যায়নি। তবে ইকবালের সাথে কাজ করা শ্রমিকদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে স্থানীয় জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন এ খবর দেয়। মঙ্গলবার দুপুরে ডুবরী দল নদীর পানিতে উদ্ধার কাজ শুরু করলে বিকাল সাড়ে ৩টার নাগাদ তার অক্ষত মরদেহ উদ্ধার করে।
এ বিষয়ে মিরসরাই ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের স্টেশন কর্মকর্তা তানভীর আহম্মেদ জানান, বিষয়টি স্থানীয় জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ সোমবার বিকালে আমাদের জানায়। মঙ্গলবার আমরা উদ্ধার কাজ চালিয়ে বিকাল সাড়ে ৩টার নাগাদ নিখোঁজ ইকবালের মরদেহ উদ্ধার করতে পেরেছি। মরদেহ সম্পূর্ণ অক্ষত, তবে উদ্ধারের সময় দেখা গেছে তার একটি পা নদীর বালিতে ঘেঁড়ে ছিল।
মিরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন ফারুকী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর জানান, ইকবালের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) পাঠানো হয়েছে। থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মতামত দিন