বোয়ালখালীতে সড়ক উন্নয়নের নামে খাল দখল!


সৈয়দ মোঃ নজরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা প্রতিনিধি: ২৭ কোটি টাকা ব্যয়ে বোয়ালখালী উপজেলার প্রধান সড়ক হাওলা (কানুনগোপাড়া) ডিসি সড়ক সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে এতে এলাকার মানুষ যতনা খুশি তার ছেয়ে ঢের বেশি ক্ষুদ্ধ তারা। তাদের অভিযোগ সড়কটির অলি বেকারী হতে জোটপুকুর পাড় পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার দীর্ঘ গাইড ওয়াল নির্মাণ করতে গিয়ে পাশ্ববর্তী ছন্দারিয়া খালের বেশিরভাগ অংশ দখল করে নিচ্ছে তারা। এতে করে এলাকায় জলাবদ্ধতা সহ চাষাবাদে বিরুপ প্রভাব পড়ার আশঙ্খা এলাকাবাসীদের। আকুবদন্ডী এলাকার মোবারক হোসেন নামের এক কৃষকের অভিযোগ আমরা গরীব লোক চাষাবাদই আমাদের একমাত্র অবলম্বন। এভাবে যদি খালটি দখল হয়ে যায় তাহলে আমরা চাষাবাদ করবো কেমন করে, পানি পাবো কই। চাষাবাদ না হলে না খেয়েই মরতে হবে আমার মত এখানকার অনেক’কেই।

বজল আহমদ নামের এলাকার ষাটোর্ধ এক কৃষকের অভিযোগ প্রায় ৪০ ফুট প্রশস্থ এ খালটিতে গাইড ওয়াল নির্মাণ করতে গিয়ে দখল করা হয়েছে অর্ধেকের ও বেশি অংশ। এভাবে হলে আগামী বর্ষা মৌসুম থেকে আকুবদন্ডী, পোপাদিয়া, আমুচিয়া কানুনগো পাড়া, সারোয়াতলী সহ জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হবে বব্যাপক এলাকায়। কারণ এসব এলাকার পানি নিস্কাশনের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে এ খালটি।
স্থানিয়দের এমন অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছিয়া খাতুনের নির্দেশে ৭ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সকালে খালটির উল্লেখিত অংশ পরিদর্শন করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরী।
সহকারী কমিশনার ভূমি মোঃ মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছিয়া খাতুনের স্যারের নির্দেশে ও স্থানীয় এক সংবাদ কর্মীর মাধ্যমে আমরা খবর পেয়ে। বোয়ালখালী উপজেলা ছন্দরিয়া খাল সরেজমিনে পরিদর্শন করি, ছন্দরিয়া খাল ৪০ফুট ছিলো, প্রায় ২০ ফুট দখল করে রিটার্নিং ওয়াল নির্মাণ করে ফেলে সড়ক ও জনপথ বিভাগ।
তদন্ত করে প্রতিবেদনটি মাননীয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছিয়া খাতুন স্যার বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে।
দোহাজারী সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোবাইল যোগাযোগ করা হলে মোবাইল রিসিভ করেনি।

মতামত দিন