লোহাগাড়ার বড়হাতিয়ায় প্রতিপক্ষের গুলিতে যুবক খুন

মো. এরশাদ আলম, লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম):

চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার বড়হাতিয়া ইউনিয়নের চাকফিরানী এলাকার খন্দকার পুকুর সংলগ্ন বোয়াইন্যা বিল নামক স্থানে (১৩ জানুয়ারী) বুধবার বিকেল ৩ টায় সংঘটিত ঘটনায় কথিত তৌহিদ-নোমান পক্ষের আক্রমনে ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ হওয়া সাইফুল (৩৫) চমেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর সন্ধ্যা আনুমানিক সাড়ে ৭ টায় মারা যান। নিহত সাইফুল কুমিরাঘোনা এলাকার লুৎফরবর পাড়ার আজিজুর রহমানের পুত্র।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বড়হাতিয়া ৭ নং ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ বেলাল উদ্দীন।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘনার হামলাকারীরা প্রথমে জনৈক ফিরোজ মিস্ত্রির বাড়িতে লুটপাট চালায়। স্থানীয়রা প্রতিরোধ করতে এগিয়ে যান। কিন্তু আক্রমনকারীরা সাইফুলকে একা পেয়ে তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়লে সাইফুল আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে আক্রমনকারীরা রাম দা দিয়ে তাঁকে কুপিয়ে গুরতর জখম করে পালিয়ে যায় । পরে স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য চমেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে তিনি মারা যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আক্রমনকারীদের আশ্রয়স্থল গহীন অরণ্য এলাকায়। তারা পূর্বে ও কুমিরাঘোনা বাজার কমিটির সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আরিফুল ইসলামের উপর হামলা চালিয়েছিল। এতে আরিফ পঙ্গু হয়ে বর্তমানে কালযাপন করছেন।

এ’ব্যাপারে থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রাশেদুল ইসলাম জানান, থানার ওসি এবং সার্কেল মহোদয় ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আছেন। এ’ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, বড়হাতিয়ার এই এলাকায় একের পর এক এই ধরণের নৃশংস ঘটনা ঘটছে।এতে নিহত ও আহত হচ্ছে অনেকেই। কিন্তু অপরাধীরা সবসময় আইনের ধরা-ছোঁয়ার বাহিরে থাকে। যেহেতু পার্শ্ববর্তী এলাকা গহীন অরণ্যবেষ্টিত। সেহেতু অপরাধীরা সহজেই আন্তগোপন করার সুয়োগ পায়। তাই স্থানীয় নীরহ জনগন এ’ব্যাপারে সরকারের প্রশাসনসমূহের কঠোর হস্তক্ষেপ ও নজরদারি দাবী করেছেন।

মতামত দিন