আইন পেশার মান, মর্যাদা সম্মুনত রাখতে আইনজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে-চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির বার্ষিক ভোজে মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী শ.ম. রেজাউল করিম

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির বার্ষিক ভোজে প্রধান অতিথি মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী অ্যাড. শ.ম. রেজাউল করিম এম,পি বলেন,“আইন পেশার মান, মর্যাদা সম্মুনত রাখতে আইনজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে”

গত ২০ই জানুয়ারী ২০২১ সন্ধ্যে ৬-৩০ টায় চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির বার্ষিক ভোজ অনুষ্ঠান উৎসবমুখর পরিবেশে আইনজীবী অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। বার্ষিক ভোজ উপলক্ষে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি সৈয়দ মোক্তার আহমদ এবং স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ.এইচ.এম. জিয়াউদ্দিন সঞ্চালনায় ছিলেন সমিতির সহসাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ কবির হোসাইন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী অ্যাড. শ.ম. রেজাউল করিম, এম.পি, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের অ্যার্টনী জেনারেল ও বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের চেয়ারম্যান এবং সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. এ.এম. আমিন উদ্দিন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী, মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমান, চীফ মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ ওসমান গণি, সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্মানিত সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। এছাড়া কার্যনির্বাহী পরিষদের সিনিয়র সহসভাপতি শেখ মো. ছাবেদুর রহমান, সহসভাপতি মো. আজিজুল হক চৌধুরী, অর্থ সম্পাদক মঈনুল আলম চৌধুরী (টিপু), পাঠাগার সম্পাদক মো. আলী আকবর (সানজিক), তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক মো. ইমরুল হক মেনন, নির্বাহী সদস্য যথাক্রমে এ.এস.এম. রিদওয়ানুল করিম, তানজিন আক্তার সানি, মো. মেজবাহ উদ্দিন, মো. ওমর ফারুক, মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম, মো.মনজুর হোসেন, মুহাম্মদ শফিউল আজম বাবর, শেখ তাপসী তহুরা, নাসরিন আক্তার চৌধুরী, মো. রবিউল আলমসহ বিদায়ী পরিষদের কর্মকর্তা ও সদস্যবৃন্দ এবং সমিতির সাবেক সভাপতি ও সাধারণসম্পাদকবৃন্দ সহ বিপুল সংখ্যক বিজ্ঞ আইনজীবী।

স্বাগত বক্তব্য সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ.এইচ.এম. জিয়াউদ্দিন তিনি তাঁর কার্যকালে বিভিন্ন কর্মকান্ডের বক্তব্য তুলে ধরেন। করোনা ভাইরাস জনিত কারণে বিজ্ঞ আইনজীবীদের চিকিৎসা সেবা ও নানামুখী কর্মকান্ডে সর্বাত্মক পাশে থাকার চেষ্টা করেছেন। তিনি বিজ্ঞ আইনজীবীদের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে এ্যাম্বুলেন্স ও অক্সিজেনসহ জরুরী চিকিৎসা সেবা দিতে মেডিকেলের বিভিন্ন সরঞ্জামাদি ক্রয় করেছেন। সমিতির কল্যানে আইনজীবীদের পেশাগত উৎকর্ষ সাধনে বার ও বেঞ্চের মধ্যে সর্ম্পক উন্নয়নে সর্বাতœক প্রয়াস চালিয়েছেন। তিনি চট্টগ্রামের বিজ্ঞ আইনজীবীদের প্রাণের দাবী হাইকোর্টের একটি সার্কিট বেঞ্চ স্থাপন, সমিতির বিজ্ঞ সদস্যদের জন্য শাপলা ভবনের পাশে নতুন প্রস্তাবিত জায়গায় ভবন নির্মানে সহযোগীতা, আদালত অঙ্গনে বিচারক সংকট, চট্টগ্রামে সাইবার ট্রাইব্যুনাল গঠন, অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আইনজীবীদের জন্য করোনার টিকা, বিচারপ্রার্থী জনগণের হয়রানী এবং মামলা জট সৃষ্টি হওয়ার বিষয়সহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রধান অতিথি ও প্রধান বক্তা দৃষ্টি আকর্ষণ করে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহনের দাবী জানান। বিভিন্ন পরিস্থিতিতে বিজ্ঞ আইনজীবীদের পাশে থেকে কৃতজ্ঞতা ও সহযোগীতার বন্ধনে আবদ্ধ রাখায় তিনি প্রধান অতিথি ও প্রধান বক্তার দৃষ্টি আকর্ষণ করে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।
প্রধান অতিথি মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী অ্যাড. শ.ম. রেজাউল করিম বলেন, চট্টগ্রামের আইনজীবীদের প্রতি আমার ভালোবাসার টান বেশী ছিল বলেই আজকের অনুষ্ঠানে আমি আসতে পেরেছি। আমি এযাবৎ ৯বার আইনজীবীদের বিভিন্ন প্রোগ্রামে এসেছি। আমি সর্বদা আইনজীবীদের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। আইন পেশার মান, মর্যাদা সম্মুনত রাখতে আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। তিনি আইনজীবীদের বিভিন্ন দাবীর বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সাথে পরামর্শক্রমে দ্রুত সমাধান করবেন মর্মে আশ্বস্থ করেন।
প্রধান বক্তা এ.এম.আমিন উদ্দিন বলেন, ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় আইনজীবীদের পাশাপাশি বিচার বিভাগের প্রতিটি সদস্যকে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে। শত প্রতিক’লতার মধ্যেও আমাদের প্রত্যেককে সততার নির্দশন রাখতে হবে। বার ও বেঞ্চের সুসম্পর্ক যেন বজায় থাকে সিদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। কোন অবস্থাতেই বিচার বিভাগের মান সম্মান ঐতিহ্য ক্ষতিগ্রস্থ হয় এমন কাজ করা থেকে আমাদের সকলকে বিরত থাকতে হবে। বিচার অঙ্গনের সততা ও নৈতিকতা সবচেয়ে জরুরী বিষয়। চট্টগ্রামে সাকির্ট বেঞ্চ স্থাপন এবং বিচারক সংকট নিরসনে প্রধান বিচারপতির সহিত পরামর্শক্রমে আশু সমাধান করবেন মর্মে আশ্বাস প্রদান করেন।
চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সৈয়দ মোক্তার আহমদের সমাপনী বক্তব্যর মধ্য দিয়ে সভা শেষে আগত অতিথিদের নৈশ ভোজে আপ্যায়িত করা হয় পরবর্তীতে সমিতির সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক রুনা কাশেমের সঞ্চালনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

জেলা আইনজীবি সমিতির সকল নেতৃবৃন্দ, সদস্য এবং সকল সিনিয়র জুনিয়র আইনজীবিদেও উৎসবমুখর এই পুরস্কার বিতরণী ও ভোজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি শ.ম রেজাউল করিম বার্ষিক আন্ত আইনজীবি ক্রীড়া প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে ট্রফি ও নগদ অর্থ পুরস্কার তুলে দেন।
উল্লেখ্য, চট্টগ্রাম আইনজীবি সমিতির সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুনা কাশেমের উদ্যোগ ও সার্বিক ব্যবস্থাপনায় সমিতির শত বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বর্ণাঢ্য আয়োজনে এবারের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সফলভাবে সম্পন্ন হয়। প্রতিযোগীতার মুল দুটি ইভেন্ট ফুটবল এবং ক্রিকেটে একই সাথে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে কোর্ট ওয়ারিয়র্স টিম।
চট্টগ্রাম আইনজীবি সমিতির সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুনা কাশেম জানান, চট্টগ্রাম আইনজীবি সমিতির ১২৮ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বৃহদ, বর্ণাঢ্য আয়োজনে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবি সমিতির বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা এবং বার্ষিক ভোজ সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। ভোজ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সমিতির সকল নের্তৃবৃন্দ এবং সিনিয়র জুনিয়র ও শিক্ষানবীশ আইনজীবিরা স্বতস্ফুর্তভাবে অংশ গ্রহন করেন।

মতামত দিন