চসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয়ী কাউন্সিলর যারা

সংঘাত-সহিংসতাসহ নানা ঘটনার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচন। বেসরকারি ফলাফলে নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডের মধ্যে ২৯টি ওয়ার্ডেল নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা। বিএনপির কোন প্রার্থীই কোথাও বিজয়ী হতে পারেননি।

নির্বাচনে এবার ৪১ ওয়ার্ডের মধ্যে অনুষ্ঠিত ৩৯টি ওয়ার্ডেই আওয়ামী লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। নির্বাচন নিয়ে নানা প্রশ্ন থাকলেও নিজ দল আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ভোটে জিতেছেন ৭ বিদ্রোহী। তারা হলেন, ২ নম্বর ওয়ার্ডে সাবেক কাউন্সিলর সাহেদ ইকবাল বাবু, ৩ নম্বর ওয়ার্ডে হাজী শফিকুল ইসলাম, ৪ নম্বর ওয়ার্ডে এসরারুল হক, ৩৩ নম্বর ওয়ার্ডে হাসান মুরাদ বিপ্লব, ৯ নম্বর ওয়ার্ডে জহুরুল আলম জসিম, ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডে মোরশেদ আলী, ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে মোহাম্মদ ইলিয়াস।

বিভিন্ন ওয়ার্ডে নির্বাচিত ওয়ার্ড কাউন্সিলগন:

১নং দক্ষিণ পাহাড়তলী: আওয়ামী লীগের গাজী মো. শফিউল আজিম (ঘুড়ি), ২নং জালালাবাদ ওয়ার্ড: বিদ্রোহী মো. সাহেদ ইকবাল বাবু (ঝুড়ি), ৩নং পাঁচলাইশ: বিদ্রোহী প্রার্থী মো. শফিকুল ইসলাম (মিষ্টি কুমড়া), ৪নং চান্দগাঁও: বিদ্রোহী প্রার্থী মো. এসরারুল হক (ঘুড়ি), ৫নং মোহরা: আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ কাজী নুরুল আমিন মামুন (ঘুড়ি), ৬নং পূর্ব ষোলশহর: আওয়ামী লীগের এম আশরাফুল আলম (ঘুড়ি), ৭নং পশ্চিম ষোলশহর: আওয়ামী লীগের মো. মোবারক আলী (টিফিন ক্যারিয়ার), ৮নং শুলকবহর: আওয়ামী লীগের মো. মোরশেদ আলম (লাটিম), ৯নং পাহাড়তলী: বিদ্রোহী প্রার্থী মোহাম্মদ জহুরুল আলম জসিম (মিষ্টি কুমড়া), ১০নং উত্তর কাট্টলী: আওয়ামী লীগের নিছার উদ্দিন আহমেদ (মিষ্টি কুমড়া), ১১নং দক্ষিণ কাট্টলী: আওয়ামী লীগের মো. ইসমাইল (টিফিন ক্যারিয়ার), ১২নং সরাইপাড়া: আওয়ামী লীগের মো. নুরুল আমিন (রেডিও), ১৩নং পাহাড়তলী: আওয়ামী লীগের মো. ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী (লাটিম), ১৪নং লালখান বাজার: আওয়ামী লীগের আবুল হাসনাত মো. বেলাল (ঘুড়ি), ১৫নং বাগমনিরাম: আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দীন (ঘুড়ি), ১৬নং চকবাজার: আওয়ামী লীগের সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), ১৭নং পশ্চিম বাকলিয়া: আওয়ামী লীগের এ মোহাম্মদ শহিদুল আলম (ঘুড়ি), ১৮নং পূর্ব বাকলিয়া: বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ, ১৯নং দক্ষিণ বাকলিয়া: আওয়ামী লীগের মো. নুরুল আলম (মিষ্টি কুমড়া), ২০নং দেওয়ান বাজার: আওয়ামী লীগের চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী (ঠেলাগাড়ি), ২১নং জামালখান: আওয়ামী লীগের শৈবাল দাশ সুমন (ঠেলাগাড়ি), ২২নং এনায়েত বাজার: আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ সলিম উল্লাহ বাচ্চু (ঘুড়ি), ২৩নং উত্তর পাঠানটুলী: আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ জাবেদ (মিষ্টি কুমড়া), ২৪নং উত্তর আগ্রাবাদ: আওয়ামী লীগের নাজমুল হক ডিউক (ঠেলাগাড়ি), ২৫নং রামপুরা: আওয়ামী লীগ সমর্থিত আব্দুস সবুর লিটন (টিফিন ক্যারিয়ার), ২৬নং উত্তর হালিশহর: মোহাম্মদ ইলিয়াছ (ঘুড়ি), ২৭নং দক্ষিণ আগ্রাবাদ: মো. শেখ জাফরুল হায়দার চৌধুরী (লাটিম), ২৮নং পাঠানটুলী: আওয়ামী লীগের নজরুল ইসলাম বাহাদুর (রেডিও), ২৯নং পশ্চিম মাদারবাড়ি: আওয়ামী লীগের গোলাম মোহাম্মদ জোবায়ের (রেডিও), ৩০নং পূর্ব মাদারবাড়ি: আওয়ামী লীগের আতাউল্লাহ চৌধুরী (ঘুড়ি), ৩১নং আলকরণ: কাউন্সিলর প্রার্থী তারেক সোলেমান সেলিমের মৃত্যুতে নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। নতুন তফসিল অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি।, ৩২নং আন্দরকিল্লা: আওয়ামী লীগ সমর্থিত জহর লাল হাজারী (মিষ্টি কুমড়া), ৩৩নং ফিরিঙ্গি বাজার: বিদ্রোহী প্রার্থী হাসান মুরাদ বিপ্লব (মিষ্টি কুমড়া), ৩৪নং পাথরঘাটা: আওয়ামী লীগের পুলক খাস্তগীর (ঠেলাগাড়ি), ৩৫নং বক্সিরহাট: আওয়ামী লীগের হাজী নুরুল হক (ঘুড়ি), ৩৬নং গোসাইলডাঙ্গা: বিদ্রোহী প্রার্থী মো. মোর্শেদ আলী, ৩৭নং মুনিররগর: আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ আবদুল মান্নান (ঠেলাগাড়ি), ৩৮নং দক্ষিণ মধ্যম হালিশহর: আওয়ামী লীগের গোলাম মো. চৌধুরী (ঠেলাগাড়ি), ৩৯নং দক্ষিণ হালিশহর: আওয়ামী লীগের জিয়াউল হক সুমন (লাটিম), ৪০নং উত্তর পতেঙ্গা: আওয়ামী লীগের আবদুল বারেক (ঠেলাগাড়ি) ও ৪১নং দক্ষিণ পতেঙ্গা: আওয়ামী লীগের ছালেহ আহম্মেদ চৌধুরী (ঘুড়ি)।

১৮ নম্বর ওয়াের্ডে মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় এবং ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে তারেক সোলেমান সেলিমের মৃত্যুতে ভোট স্থগিত করা হয়।

সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচিত কাউন্সিলরগন:

১. ফেরদৌস বেগম মুন্নি

২. জোবাইরা নার্গিস

৩. জেসমিন পারভীন জেসি

৪. তছলিমা বেগম

৫. আঞ্জুমান আরা

৬. শাহীন আক্তার চৌধুরী

৭. রুমকি সেনগুপ্ত

৮. নীলু নাগ

৯. জাহেদা বেগম পপি

১০. হুরে আরা বেগম

১১. ফেরদৌসি আকবর

১২. আফরোজা বেগম

১৩. লুৎফুন্নেছা দোভাষ বেবী

মতামত দিন