অটোপাস চাচ্ছেন ৩৪ হাজার শিক্ষক

করোনা মহামারির কারণে শ্রেণি কার্যক্রম বন্ধ থাকায় এবার অটোপাস চেয়েছেন ৩৪ হাজার শিক্ষক। তারা প্রাইমারি টিচার্স ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের (পিটিআই) ডিপ্লোমা ইন প্রাইমারি এডুকেশন (ডিপিএড) কোর্সের চূড়ান্ত লিখিত পরীক্ষায় পাস করতে এই আর্জি জানিয়েছেন।

পিটিআই’-এ কোর্স করা এসব শিক্ষকরা বলছেন, করোনার কারণে ঠিকমতো ক্লাস করতে পারেননি তারা। ফলে কোর্সের বিষয়গুলো শিখতে হয়েছে নিজেদের মতো করে। এতে পরীক্ষায় অংশ নেওয়া তাদের পক্ষে কঠিন হয়ে পড়েছে।

এদিকে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমি (নেপ) আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে ডিপিএড কোর্সের চূড়ান্ত লিখিত পরীক্ষা গ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে পরীক্ষার সূচিও প্রকাশ করে দিয়েছে। তবে শিক্ষকরা এই পরীক্ষা স্থগিত চেয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দারস্থ হয়েছে। এজন্য কয়েকজন শিক্ষক মন্ত্রণালয়ে লিগ্যাল নোটিশও পাঠিয়েছেন। নোটিশে মহামারির সময়কে বিবেচনায় নিয়ে ২২ ফেব্রুয়ারির পরীক্ষা পেছানো অথবা অটোপাস দেওয়ার দাবি করা হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়, ডিপিএড ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে প্রায় ৩৪ হাজার পরীক্ষার্থীর শারীরিক উপস্থিতি ছাড়া কাঠামোগত মূল্যায়ণের মাধ্যমে চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করতে বলা হয়েছে। নোটিশ পাওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যে চূড়ান্ত লিখিত পরীক্ষার সূচি মূলতবি করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ না করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও উল্লেখ করা হয়। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ছাড়াও নোটিশটি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সচিব, প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমির মহাপরিচালক, শিক্ষা একাডেমির মহাপরিচালকসহ (নেপ) সংশ্লিষ্টদের পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমির (নেপ) মহাপরিচালক মো. শাহ আলম বলেন, এই পরীক্ষা কোনোভাবেই পেছানো হবে না। এই পরীক্ষা যথা সময়ে শুরু হয়ে যথা সময়ে শেষ হবে। তবে ২৮ ফেব্রুয়ারির পরীক্ষাটি পৌরসভা নির্বাচনের কারণে পিছিয়ে যাবে।

মতামত দিন