সুদের টাকার জন্য নারীকে গাছের সাথে বেঁধে নির্যাতন, ভিডিও ভাইরাল, গ্রেফতার ১

জেলা প্রতিনিধিঃ
সুদের টাকা না দেয়ায় নারীকে গাছের সাথে বেঁধে নির্মম নির্যাতন চালানো হয়েছে। ১৭মার্চ সকাল থেকে নির্যাতনের বেশ কিছু ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হলে বিষয়টি নজরে নেয় থানা পুলিশ প্রশাসন। পুলিশ তাৎক্ষনিক ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে নির্যাতকারীর পিতা জহির আহমদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে।
মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) বিকেল ৪টার দিকে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নের পহরচাদা গ্রামের মোরাপাড়া এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটেছে।
বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নিয়াজুল ইসলাম বাদল বলেন, কয়েক মাস আগে নুর আয়েশা তার স্বামীর চিকিৎসার জন্য টিউওয়েবল মেস্ত্রী শওকত ওসমানের কাছ থেকে চার হাজার টাকা সুদের উপর ধার নেয়। ইতোমধ্যে নুর আয়েশা সুদ ও আসলসহ ৮ হাজার টাকা পরিশোধও করেন।  
মঙ্গলবার দুপুরের শওকত ওসমান ওই নারী বাড়িতে গিয়ে আরো দুই হাজার টাকা দাবি করে। কিন্তু নুর আয়েশা ওই টাকা বৃহস্পতিবার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে তা মানতে নারাজ শওকত ওসমান। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে শওকত ওসমান গৃহবধূ নুর আয়েশাকে একটি গাছের সাথে শাড়ি দিয়ে বেঁধে মারধর ও অমানবিক নির্যাতন করে। একপর্যায়ে শওকত ওই নারীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালায়।
বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জালাল আহমদ সিকদার বলেন, ঘটনাটি জানার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত হওয়া গেছে। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার ওসিকে জানানো হয়েছে। আমি এ ঘটনার জন্য দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান বলেন, এক নারীকে নির্যাতন চালানোর একটি ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার ঘটনাটি পুলিশের নজরে আসার পরপরই অভিযান চালানো হয়। এ সময় অভিযুক্ত নির্যাতনকারী ওই যুবক পালিয়ে গেলেও তার বাবাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এদিকে বুধবার রাতে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে মূলহোতা শওকতকে প্রধান আসামি করে ৬ জনের বিরুদ্ধে দায়ের মামলাটি নথিবদ্ধ করা হয়েছে বলে জানান হাসানুজ্জামান।

এসপি জানান ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মতামত দিন