সীমান্ত বন্ধ: ভারতে থাকা বাংলাদেশিরা ফিরতে পারবেন না ১৪ দিন

করোনা সংক্রমণ রোধে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত সোমবার থেকে ১৪ দিনের জন্য বন্ধ করে দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। এই ১৪৫ দিন সীমান্তে কেউ যাতায়াত করতে পারবেন না। তবে স্থলবন্দরে পণ্য আমদানি-রপ্তানি চলবে।

সরাকারের এই সিদ্ধান্তের কারণে ভারতে দুই হাজারের মতো বাংলাদেশি আটকা পড়েছেন। একটি সূত্র জানিয়েছে, ভারতে অবস্থান করা দুই হাজার বাংলাদেশির মধ্যে ১৫০০ রোগী ও ৫০০ জন ব্যবসায়ী। ঈদ উপলক্ষে তারা কেনাকাটা করতে ভারতে গিয়েছিলেন। দুই সপ্তাহের জন্য সীমান্তে কড়াকাড়ি আরোপ করায় তারা দেশে ঢুকতে পারবেন না।

কলকাতার বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনের হাই-কমিশনার তৌফিক হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, মোটামুাটি দু’হাজারের মতো বাংলাদেশি ভারতে অবস্থান করছেন। তবে এখনই সঠিকভাবে বলতে পারবো না। কতজন রোগী, কতজন আদার্স। কারণ আজ রোববার, এখানে ছুটির দিন। তবে যারা ভারতে আছেন তারা দু’সপ্তাহের জন্য ফিরতে পারবেন না।

‘ব্যাতিক্রম যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ। তবে এমন কোনো ব্যক্তি থাকলে তাদের এখানে (দূতাবাসে) যোগাযোগ করতে হবে। এখান থেকে একটি প্রশংসাপত্র দেওয়া হবে, তাই নিয়ে দেশে ফিরতে হবে। ’

গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে দুই হাজার ৭৬০ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনাভাইরাস। এ নিয়ে দেশটিতে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৯২ হাজার ৩১১ জনে। এদিন আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৪৯ হাজার মানুষ।ভারতে করোনা প্রকোপ বাড়তে থাকায় এবং করোনায় ডাবল মিউট্যান্ট ছড়িয়ে পড়ায় সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ সরকার।

মতামত দিন