নিরাপরাধ হাসিনা অবশেষে মুক্তি পেলেন

নিজের আর স্বামীর নামের একাংশের মিলের কারণে অপরাধ না করেও চট্টগ্রাম কারাগারে প্রায় দেড় বছর সাজভোগকারী হাছিনা বেগম অবশেষে কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন।

মঙ্গলবার (৪ মে) বিকাল ৫টায় চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে তিনি মুক্তি পান।এ সময় সাথে ছিলেন তার আইনজীবী এডভোকেট গোলাম মাওলা মুরাদ।

দুপুরে চট্টগ্রামের ৪র্থৃ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ শরীফুল আলম ভূঁঞার ভার্চুয়াল আদালত হাছিনা বেগমকে মুক্তির আদেশ দেন।

এর আগে টেকনাফ থানা পুলিশ ও চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগার কর্তৃপক্ষ তাদের প্রতিবেদনে হাসিনা বেগমের সঙ্গে প্রকৃত আসামি হাসিনা আক্তারের ছবির মিল না থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

২০১৭ সালের ২৫ মার্চ মাদক মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে যান হাসিনা আক্তার নামের টেকনাফের এক আসামি। তার সাথে তার স্বামীও গ্রেফতার হন। পরে প্রায় ৯ মাসেরও বেশি সময় ধরে কারাবন্দি থাকার পর হাসিনা আক্তার উচ্চ আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে পালিয়ে যান। হাসিনার অনুপস্থিতিতে মাদক মামলায় ৬ বছরের সশ্র্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন আদালত। ২০১৯ সালের ২৬ ডিসেম্বর হাসিনার আক্তারের স্থায়ী ঠিকানা অনুযায়ী টেকনাফের একই এলাকা থেকে টেকনাফ থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করে হাসিনা বেগম (৪০) কে। বিষয়টি আদালতের নজরে আনেন আইনজীবী এডভোকেট গোলাম মাওলা মুরাদ। পরে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী পুলিশ রিপোর্টৃ ও জেল কর্তৃপক্ষের রিপোর্টে দেড় বছর ধরে সাজা ভোগ করা হাসিনা প্রকৃত আসামী নয় মর্মে উঠে আসে।

মতামত দিন