তিন নারীকে আটকে দেহ ব্যবসায় বাধ্য করে প্রতারক চক্র(ভিডিওসহ)

চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে ১ বৎসর যাবৎ জোর পূর্বক আটকে রেখে পতিতাবৃত্তি করিয়ে আসছিল একটি সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র।

প্রায় ১ বছর আগে তাদের ভোলা ও লক্ষ্মীপুর থেকে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে বন্দরের ভাড়া বাসায় নিয়ে আসে আমির নামে এক ব্যক্তি। চাকরি না দিয়ে তাদেরকে দিয়ে উল্টো যৌনকর্মীর কাজ করানো হতো। আর এই কাজে সহায়তা করত নুরুল আলম নামের আরেক ব্যক্তি।

তিন নারীকে আটকে রেখে দেহ ব্যবসায় বাধ্য করার অপরাধে এই দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৭। একই সাথে এ সময় তিন নারীকেও উদ্ধার করা হয়।

মঙ্গলবার (৪ মে) অপরাধীদের গ্রেপ্তার করার বিষয়টি নিশ্চিত করে, র‍্যাব-৭, চট্টগ্রাম এর সহকারি পরিচালক (মিডিয়া) মোঃ নূরুল আবছার জানান, সোমবার রাতে চট্টগ্রাম নগরের বন্দর থানার দক্ষিণ-মধ্যম আলী রোডের ফারুক কলোনির একটি বাসা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত দুইজন হলো আনোয়ারা উপজেলার পারকিচর নানু মেম্বারবাড়ির সাহাব মিয়ার ছেলে মো. নুরুল আলম (৬০) ও পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উত্তর টিকিকারা গ্রামের আমজাদ আলীর ছেলে মো. আমির (৪৫)। একটি অভিযোগের তদন্তে নেমে র‍্যাব চক্রটির সন্ধান পায়। পরে চক্রের মূলহোতা আমির ও তার সহযোগী নুরুল আলমকে গ্রেপ্তার করা হয়। ভিক্টিমরা র‍্যাবকে জানায়, প্রায় ১ বছর আগে তাদের ভোলা ও লক্ষ্মীপুর থেকে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে বন্দরের ভাড়া বাসায় নিয়ে আসে আমির। চাকরি না দিয়ে তাদেরকে আটকে রেখে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে উল্টো যৌনকর্মীর কাজ করানো হতো। আর এই কাজে সহায়তা করত নুরুল আলম।

গ্রেপ্তারকৃত দুইজনের বিরুদ্ধে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

মতামত দিন