বয়সের সীমা অতিক্রম করেও আলী-মান্নানের হাতেই সাতকানিয়া ছাত্রলীগের ভার!

প্রতিনিধি:

ছাত্রলীগের নেতা হওয়ার দৌড়ে বয়সের সকল সীমা অতিক্রম করেছেন সদ্য ঘোষিত সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের পদভার পাওয়া শীর্ষ দুই নেতাই। জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী নবঘোষিত কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ আলীর বয়স ৩১ বছর ২০ দিন। আর সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নানের বয়স ৩০ বছর ৬ মাস ১৯ দিন। সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ নেতাদের অভিযোগ, সদ্য ঘোষিত উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী এবং সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান কারোই ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী বয়স নেই।

পূর্বে ছাত্রলীগের নেতা হওয়ার সর্বোচ্চ সীমা ছিল ২৭ বছর। কয়েক বছর আগে ছাত্রলীগের সাংগঠনিক নেত্রী ও অভিভাবক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা বাড়িয়ে নতুন করে বয়সসীমা নির্ধারণ করেন ২৮ বছর। সে হিসেবে ছাত্রলীগ নেতা হওয়ার মানদণ্ড ধরা হয় ২৮ বছর।

এদিকে এ প্রসঙ্গে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ তো আমাদের ভোটার আইডি কার্ড দেখে দায়িত্ব দেয় নাই। আমরা এডুকেটেড পার্সন, আমরা অনার্স-মাস্টার্স করছি। আমাদের সার্টিফিকেট এজ দেখে দিছে। যারা অভিযোগ করছে তারা সর্বোচ্চ অষ্টম শ্রেণি পাস। তাদের কোয়ালিটিও নাই, কোয়ান্টিটিও নাই। আমি চট্টগ্রাম কলেজ থেকে অনার্স-মাস্টার্স পাশ করা ছেলে।’

অন্যদিকে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়া আব্দুল মান্নানকে বক্তব্যের জন্য ফোন করেও পাওয়া যায়নি।

উপজেলা ছাত্রলীগের নেতারা জানান, তিন বছর আগে ছাত্রশিবির কর্মী, ছাত্রদল নেতা, মোটর সাইকেল চুরির মামলার আসামি, অছাত্র, মাটি ব্যবসায়ী ও বিদেশ ফেরত শ্রমিক স্থান দেওয়ার অভিযোগের মুখে বিলুপ্ত করা হয় সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি। সেই কমিটিতে সভাপতির দায়িত্ব পালন করছিলেন নতুন কমিটিতে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়া আব্দুল মান্নান।

এদিকে সম্প্রতি নতুন কমিটি ঘোষণার পরপর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাবেক-বর্তমান ছাত্রলীগ নেতারা। এমনকি তাদের সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে প্রতিবাদের সুর তুলেছেন খোদ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দীন চৌধুরী। তার ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্টে তিনি লিখেছেন, ‘ছাত্রত্বহীন ও বয়সসীমা পেরিয়ে যাওয়া মাটি ব্যবসায়ী আর বালু ব্যবসায়ীদের নিয়ে ছাত্রলীগের কমিটি সাতকানিয়ার ছাত্রসমাজ মেনে নিবে না।’

দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সোহরাব হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘দীর্ঘ দিন সাতকানিয়া উপজেলায় ছাত্রলীগের কোন কমিটি ছিল না। কিন্তু রাতের আধারে দেওয়া বর্তৃমান কমিটির দুজনই ব্যবসায়ী। বয়স নেই, ছাত্রত্ব নেই। আমাদের দাবি, গঠনতন্ত্র মোতাবেক নতুন একটি কমিটি হোক।’

উল্লেখ্য, সোমবার (৪ এপ্রিল) মধ্যরাতে দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আলীকে সভাপতি আর বিলুপ্ত কমিটির সাবেক সভাপতি আব্দুল মন্নানকে সাধারণ সম্পাদক করে সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করে দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগ। দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এস এম বোরহান উদ্দীন ও সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের এ কমিটি ঘোষণা করেন। এরআগে ২০১৮ সালের ২০ জুন আব্দুল মান্নানকে সভাপতি আর তোফাজ্জল হোসেন তুহিনকে সাধারণ সম্পাদক করে উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করে বোরহান-তাহের পরিষদ।

মতামত দিন