ঘুমন্ত স্বামীকে যে কারনে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেন রোহিঙ্গা স্ত্রী

প্রতিনিধি: পারিবারিক কলহের জেরে কক্সবাজারের টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে স্বামী মো. ছৈয়দুর রহমানকে (৩২) কুপিয়ে হত্যা করেছে স্ত্রী। পরে ঘটনা জানাজানি হলে সানজিদা বেগম (২৩) নামে ওই নারীকে আটক করে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)।

টেকনাফের উনচিপ্রাং ক্যাম্পে জুমার নামাজের পর ঘুমচ্ছিলেন মো. সৈয়দুর রহমান (৩২)। এ সময় তাকে কুপিয়ে হত্যা করেন তার স্ত্রী সাজিদা।

১৬ এপিবিএন অধিনায়ক (এসপি) তারিকুল ইসলাম তারিক জানান, শুক্রবার বিকালে ক্যাম্পে ওই দম্পতির নিজ বাসায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ঘাতক স্ত্রীকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত মো. সৈয়দুর রহমান (৩২) টেকনাফের ক্যাম্প-২২ (উনচিপ্রাং) এর ব্লক-সি/২ এর হামিদুর রহমানের ছেলে। তার এফসিএন-২৪৪২৮৫। হত্যায় ব্যবহৃত অত্যাধুনিক একটি দা জব্দ করেছে পুলিশ।

এসপি তারিক জানান, বেশ কিছুদিন ধরে রোহিঙ্গা দম্পতি সাজিদা বেগম (২৩) ও সৈয়দুর রহমানের (৩২) মাঝে পারিবারিক কলহ চলে আসছে। শুক্রবার জুমার নামাজের পর বাড়িতে ঘুমচ্ছিলেন স্বামী সৈয়দ। এর জের ধরে বিকাল পৌনে ৩টার স্ত্রী সাজিদা স্বামী সৈয়দুর রহমানকে ঘুমন্ত অবস্থায় দা-দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। আশপাশের রোহিঙ্গারা তাৎক্ষণিক ভিকটিম সৈয়দকে ক্যাম্প অভ্যন্তরে হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনার পর পরই এপিবিএন অফিসার ও ফোর্স দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত গিয়ে রোহিঙ্গা ঘাতক নারীকে আটক করে। লাশ ও আটক নারীকে টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

টেকনাফ থানার ওসি মো. হাফিজুর রহমান বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। ঘাতক স্ত্রীর বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়েরের পর ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনে কাজ করবে পুলিশ।

মতামত দিন