সাংবাদিক পরিচয়ে তেলের দোকান থেকে চাঁদাবাজি, মুচলেকা দিয়ে মুক্তি পেল দুই টাউট

মো. এরশাদ আলম, লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম):

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় ম্যাজিস্ট্রেটের ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে জনতার তোপের মুখে পড়েছে সাংবাদিক নামধারী দুই টাউট।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) রাতে স্থানীয়ভাবে সালিশ বৈঠকে আদায়কৃত ১ হাজার টাকা ভুক্তভোগীদের কাছে ফেরৎ দিয়ে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান তারা।

কথিত সাংবাদিকরা হলেন- দৈনিক দেশের কন্ঠ পত্রিকার চট্টগ্রাম প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর আলম ও দৈনিক দিন প্রতিদিন এবং অনলাইন দ্বীপ টিভির দক্ষিণ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি মো. কলিম উল্লাহ।

এর আগে, সন্ধ্যায় কলাউজান হিন্দুর হাটে রনি মল্লিকের মালিকানাধীন শাহপীর অয়েল এজেন্সিতে গিয়ে দোকানদারকে লাইসেন্স দেখাতে বলেন। পরে দুই কথিত সাংবাদিক ম্যাজিস্ট্রেট এনে ভ্রাম্যমান আদালতের ভয় দেখিয়ে চাঁদা দাবী করেন। এসময় দোকানদার ভয়ে তাদের ১ হাজার টাকা আদায় করেন।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী রনি মল্লিক বলেন, ‘এরা দু’জন সাংবাদিক পরিচয়ে আমার দোকানে হাজির হন। পরে আমার কাছ লাইসেন্স দেখতে চায়। তখন আমি তাদের বললাম, ভাই দেখেন আমি তো ছোটখাটো ব্যবসা করি। এখানে লাইসেন্স লাগবে কেন? পরে তারা আমাকে ম্যাজিস্ট্রেট এনে জরিমানা করাবে বলে ভয় দেখায়। চাঁদা দাবি করে। আমি তাদেরকে ১ হাজার টাকা দিয়ে বিদায় করলাম।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমার ভুল হয়ে গেছে। বৈঠকে অঙ্গীকারনামা দিয়েছি। জীবন এ ধরনের কাজে আর জড়াবো না।

মতামত দিন