দেশে সুশাসনের অভাব আছে: দুদক চেয়ারম্যান

দেশে সুশাসনের অভাব আছে বলে মনে করেন দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। এই অবস্থা পাল্টে দিতে তরুণদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্রে টিআইবি আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে দুদক চেয়ারম্যান এ কথা বলেন। টিআইবির ‘সোনাক-স্বজন, ইয়েস-ইয়েস ফ্রেন্ডস, ওয়াই প্যাক’ জাতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথি হয়ে যান তিনি।

‘দেশে সুশাসনের অভাব রয়েছে এটি বলতেই হবে’-এমন মন্তব্য করে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘দুর্নীতি কমাতে হলে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে।… আর সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হলে জনগণকে দুর্নীতিবিরোধী কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করতে হবে।’

দুর্নীতির লাগাম টেনে ধরার কাজ শুরু হয়েছে জানিয়ে কাঙ্ক্ষিত ফল না আসার কথাও স্বীকার করেন দুদক চেয়ারম্যান। তবে সংস্থাটি স্বাধীনভাবে কাজ করে যাবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কোনো সরকারের লেজুড়বৃত্তি করতে দুদকের জন্ম হয়নি। এটি জনগণের। তাই জনগণের প্রচেষ্টায় বাংলাদেশের দুর্নীতি নির্মূল করতে হবে। অপরাধী যেই হোক দুদক কাউকে ছাড় দেবে না।’

দুর্নীতি নিরসন একটি সামাজিক লড়াই জানিয়ে এই সংগ্রামে তরুণদেরকে পাশে চান দুদক প্রধান। বলেন, ‘তরুণরাই পারে দেশের দুর্নীতি কমাতে। এ জন্য আমাদের (দুদক) পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা করা হবে।’

বড় দুর্নীতির বিষয়ে প্রত্যাশা অনুযায়ী কেন ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছে না-এমন প্রশ্নে জবাব আসে, ‘ছোট গাছ যেমন উপড়ে ফেলা সহজ, বড় গাছ ততটা সহজে ফেলা যায় না। আমরা ছোট, তারা বড়। বড়দের আইনের আওতায় আনতে পারিনি- এটা সম্পূর্ণ সত্য নয়। তবে প্রত্যাশার সঙ্গে অর্জন ও প্রাপ্তি খারাপ, সেটি আমরা বুঝতে পারি।’

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের প্রকাশিত দুর্নীতির ধারণাসূচকে বাংলাদেশের এক বছরে দুই ধাপ উন্নতি এবং স্কোর দুই পয়েন্ট বাড়ার বিষয়েও কথা হয় অনুষ্ঠানে।

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘এটি স্বস্তির, কিন্তু সন্তুষ্টির নয়। আমাদের আরও অর্জনের সম্ভাবনা রয়েছে।’

‘দেশে এক সময় দুর্নীতি নিয়ে মানুষের মধ্যে তেমন সচেতনতা ছিল না। টিআইবি এ বিষয়ে সচেতন করেছে। বর্তমানে সরকারও দুর্নীতি বিরোধী কার্যক্রম পরিচালনা করছে।’

টিআইবির সাবেক চেয়ারপরসন এম হাফিজউদ্দিন খান, টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আইমান সাদিক, তরুণ উদ্যোক্তা তানিয়া ওয়াহাব প্রমুখ এ সময় বক্তব্য রাখেন।

মতামত দিন