মাদক ব্যবসা ছেড়ে দেয়ায় জোরারগঞ্জ থানার ওসির ফুলেল শুভেচ্ছা

এম মাঈন উদ্দিন, মিরসরাই:

দীর্ঘ ১০ বছর যাবৎ তিনি মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। মামলা রয়েছে ৩ টি। জেলে গিয়েছেন একাধিকবার। অবশেষে নিজের ভুল বুঝতে পারেন চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ থানাধীন করেরহাট ইউনিয়নের পূর্ব অলিনগর গ্রামের হাবিবুর রহমান সুমন।

করেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান গিয়াস উদ্দিনের প্রচেষ্টায় আদালত থেকে জামিনে মুক্তি পান সুমন। পরে সুলতান গিয়াস উদ্দিন তাকে মাদক ব্যবসা ছেড়ে দিয়ে স্বাভাবিক জীবযাপনের উদ্ধৃদ্ধ করেন। তার কথায় মাদক ব্যবসা ছেড়ে দেন সুমন।

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহিদুল কবির, ওসি (তদন্ত) আনোয়ার উল্ল্যা, সেকেন্ড অফিসার দীণেশ চন্দ্র দাশগুপ্ত, আওয়ামীলীগ নেতা সুলতান গিাস উদ্দিন জসিম ফুল দিয়ে বরণ করে নেন সুমনকে।

হাবিবুর রহমান সুমন জানান, জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর সুলতান গিয়াস উদ্দিনের পরামর্শে তিনি মাদক ব্যবসা ছেড়ে দিয়েছেন। বর্তমানের তিনি পশু পালন ও কায়িক পরিশ্রম করে জীবনযাপন করবেন।

করেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান গিয়াস উদ্দিন জসিম জানান, সুমন একটি চক্রে জড়িয়ে মাদক ব্যবসায় লিপ্ত হয়ে পড়ে। পরে সে জেলে যায়। এই খবর জানতে পেরে আমি তাকে মাদক ব্যবসা ছেড়ে দেয়ার শর্তে জামিনে মুক্ত করি। সে আমার কথা রেখেছে। সুমনকে আমি অর্থসহ বিভিন্ন ভাবে সহযোগীতা করবো।

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহিদুল কবির জানান, সুমন মাদক ব্যবসা ছেড়ে দেয়ার খবর শুনে বুধবার তাকে থানায় ডেকে এনে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। যাতে করে অন্য মাদক ব্যবসায়ীরা এতে উৎসাহিত হয়ে মাদক ব্যবসা ছেড়ে দেয়।

মতামত দিন