নারী দিবসে আঁধার ভাঙার শপথ

‘এখনই সময় এগিয়ে যাবার, নারীর জীবন বদলে দেবার’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে বুধবার রাত ১২টা ১ মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মোমবাতি জ্বালিয়ে আঁধার ভাঙার আয়োজন করা হয়। এ সময় উপস্থিত নারীরা নির্যাতন বন্ধে কাজ করার দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি।

তিনি বলেন, নারীর উন্নয়নের জন্য সরকারসহ বিভিন্ন সংগঠন কাজ করে যাচ্ছে। আপনারা একটু ধৈর্য ধরুন। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকলে আপনাদের অধিকার আরও প্রতিষ্ঠা হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছেলে এবং মেয়ে কোনো মৌলিক তফাৎ করবে না। মেয়েরা এখন সব জায়গায় ভাল ফলাফল করছে। এমন একটি প্রত্যয় নিয়ে কাজ করতে হবে বাংলাদেশের সমাজে যেন নারী নির্যাতন একেবারেই না থাকে।

আমরাই পারি পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ জোটের চেয়ারপারসন সুলতানা কামাল বলেন, সংবিধানে নারী পুরুষের অধিকার সমান। সুতরাং আমাদের অধিকার দিতে হবে। ৮৭ শতাংশ নারী কোনো কোনো ভাবে বাধাগ্রস্ত হয়। নতুন একটা রিপোর্টে উঠে এসেছে ৯২ শতাংশ নারী গণপরিবহনে কোনো না কোনোভাবে হয়রানি শিকার হয়। এই ধরনের নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেয়ে শিক্ষার্থীদের ৫টি হল অংশগ্রহণ করে।

‘আমরাই পারি পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধ জোট’ ও ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়’ যৌথভাবে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

মতামত দিন