বর্ণাঢ্য আনুষ্ঠানিকতায় উদ্বোধন হলো আনন্দ টিভি’র

‘হৃদয়ের কথা বলে’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করেছে নতুন বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আনন্দ টিভি (এটিভি)। বনানী চেয়ারম্যান বাড়ি আনন্দ টিভির নিজস্ব ভবনে রোববার এই টেলিভিশনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। সন্ধ্যা সাতটায় আনন্দ টিভি’র আনুষ্টানিক উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। চ্যানেলটি সংবাদ ও বিনোদন দুই মাধ্যমেই সম্প্রচার করবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ইনু বলেন, বর্তমান সরকার গণমাধ্যমের প্রচার ও প্রসারে বিশ্বাস করে বলেই দিনে তিন হাজার পত্র-পত্রিকা প্রকাশ হচ্ছে। নতুন অনেক টেলিভিশনকেও লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে।

বর্তমানে গণমাধ্যমের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে তথ্যমন্ত্রী বলেন, গণতন্ত্র ও গণমাধ্যম উভয় এখন জঙ্গি-সন্ত্রাসী, সাইবার অপরাধী এবং তথ্যের মিথ্যাচার দ্বারা আক্রান্ত। এসবের ধাক্কায় আমাদের গণতন্ত্র ও গণমাধ্যম আজ বিপদগ্রস্ত। সুতরাং আপনাদেরকে এ আক্রমণ প্রতিহত করতে হবে।

আনন্দ টিভিকে অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা আজ থেকে গণমাধ্যম জগতের নতুন সদস্য। আশা করি, আপনারা সচেতন থাকবেন এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ তুলে ধরবেন।

চলচিত্র প্রযোজক ও বনানী চেয়ারম্যান বাড়ির আব্বাস উল্লাহ্ শিকদারের ছেলে ও আনন্দ টিভির বর্তমান চেয়ারম্যান হাসান তৌফিক আব্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সাবেক প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ, আনন্দ টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল ইসলাম, টেলিভিশনটির পরিচালক, আব্বাস উল্লাহ সিকদারের দুই মেয়েসহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতৃবর্গ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ১৬ কোটি মানুষের দেশে ১৬ কোটি সমস্যা যেমন আছে ১৬ কোটি সমাধানের পথও আছে। আমাদের শুধু সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ নিতে হবে সে সকল সমস্যা কাটিয়ে উঠার জন্য। মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশে আনন্দ টিভিসহ ৩০ টি চ্যানেল সম্প্রচারে আছে। বিভিন্ন মানুষের চাওয়াও এসকল চ্যানেলগুলোর কাছে বিভিন্ন রকম। যেহেতু এই চ্যানেলের মালিক আব্বাস উল্লাহ শিকদার একজন মিডিয়া ব্যক্তিত্ব এবং দেশের চলচ্চিত্রাঙ্গণে এযাবৎকালের সবচেয়ে বেশি ব্যবসা সফল ছবির প্রযোজক। আমি প্রত্যাশা করি আনন্দ টিভি স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি হিসেবে জনগণের আশা আকাঙ্খা পূরণে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

এটিভি’র চেয়ারম্যান হাসান তৌফিক আব্বাস বলেন, আনন্দ টিভি মুক্তিযুদ্ধের কথা বলবে। দেশের কথা বলবে, দেশের মানুষের কথা বলবে এবং দেশের বিনোদন ও সংবাদধর্মী টিভি হবে।সংবাদের পাশাপাশি সুস্থ্য ধারার বিনেদন পেতে সবাইকে আনন্দ টিভির সাথে থাকার জন্য তিনি আহ্বান জানান।

এটিভি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর নুরুল ইসলাম জানান, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে মুক্তিযুদ্ধের মাসেই চ্যানেলটি যাত্রা শুরু করছে। নতুন প্রজন্মকে সুস্থধারার বিনোদনের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে বাঙালির হাজার বছরের কৃষ্টি, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরা আনন্দ টিভির লক্ষ্য বলে জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে অন্যন্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, আনন্দ টিভির ডেপুটি হেড অব নিউজ শামসুল হক বসুনিয়া,চিফ নিউজ এডিটর রাশেদুল হাসান বিপ্লব, ইম চিফ আনিসুর রহমান সাব্বিরসহ অন্যরা।

প্রসংগত. চলতি বছরের  ২৪ জানুয়ারি থেকে আনন্দ টিভির পরীক্ষামূলক সম্প্রচার শুরু হয়।

মতামত দিন