আনিসুলের সিটিতে প্রার্থী সংকটে জাতীয় পার্টি

japa dncc

নিউজ ডেস্ক: সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে ‘যোগ্য মেয়র প্রার্থী’ খুঁজে পাচ্ছে না। আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির প্রার্থী মোটামুটি ঠিক থাকলেও জাতীয় পার্টির প্রার্থী কে হবে তা নির্ধারন করা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে দলটির কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা।

দলটির কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা বলছেন, ‘তারা এখন পর্যন্ত পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কাছ থেকে এই নির্বাচনের বিষয়ে কোনো গ্রিন সিগন্যাল পাননি।’

আনিসুল হকের মৃত্যুর পর থেকেই ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপ-নির্বাচন নিয়ে তোড়জোড় চলছে।আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না দিলেও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মেয়র পদে আনিসুলের বিকল্প যোগ্য প্রার্থী খুঁজতে মাঠে নেমে পড়েছে। ইতোমধ্যে ব্যবসায়ী নেতা আতিকুল ইসলামকে দলটি গ্রিন সিগন্যাল দিয়ে রেখেছে। বিএনপি মুখে কিছু না বললেও তারা গতবারের তরুণ মুখ তাবিথ আওয়ালকেই প্রার্থী হিসেবে বিবেচনায় রেখেছে। যেমনটি তার বাবা ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা আবদুল আওয়াল মিন্টুই জানিয়েছেন।

গত ৩০ নভেম্বর লন্ডনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ডিএনসিসি মেয়র আনিসুল হক মারা যান। নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, আগামী বছরের ফেব্রুয়ারির শেষ দিকে এই সিটিতে নির্বাচন দেবে। জানুয়ারিতে তফসিল ঘোষণা করা হবে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে উপ-নির্বাচন ছাড়াও ১৮টি নতুন ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ও ৬টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে সাধারণ এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) সঙ্গে নতুন যুক্ত হওয়া ১৮টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ও এবং ৬টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচন হবে।

রংপুর সিটি করপোরেশনে ভূমিধস বিজয়ের পর ধারণা করা হচ্ছিল, ঢাকা উত্তর সিটিতে শক্তিশালী প্রার্থী দেবে এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি। কিন্তু, দলটির ভেতরে এ নিয়ে আপাতত কোনো আলোচনা নেই বললেই চলে।

এ বিষয়ে জাতীয় পার্টির জ্যেষ্ঠ কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আমাদের দল এই নির্বাচন নিয়ে কোনো চিন্তা করছে না।’

এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘এখানে দেওয়ার মতো আমাদের যোগ্য প্রার্থী নেই। যারা আছেন, তারা ঠিক কতটা নির্বাচন করার জন্য প্রস্তুত আছে, তা আমার জানা নেই।’

সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, ‘এখন পর্যন্ত নির্বাচনে অংশগ্রহণের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়নি। শিগগিরই হয়তো পার্টির চেয়ারম্যান এ বিষয়ে মিটিং করবেন।’

তিনি বলেন, ‘আমার ধারণা, ঢাকা উত্তর সিটিতে নির্বাচন হলে জাতীয় পার্টি কোনো প্রার্থী দেবে না। কারণ, এই মুহূর্তে নির্বাচন করার মতো অবস্থানে দল নেই। এরপরও আমার কথা চূড়ান্ত নয়। সিদ্ধান্ত নিবেন চেয়ারম্যান এরশাদ নিজে।’

একই কথা জানান পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ্র রায়, ‘এখনো কিছু ঠিক হয়নি। চেয়ারম্যান কোনো নির্দেশনা দেননি।’
আর এ বিষয়ে জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার কোনো মন্তব্য করতেই রাজি হননি।

মতামত দিন