মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের এলাকায় গড়ে উঠছে রাখাইনদের বসতি!

মিয়ানমারে সেনা অভিযানের মুখে রোহিঙ্গারা যেসব এলাকা ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন সেখানেই গড়ে তোলা হচ্ছে রাখাইনদের বসতি৷ বিশ্লেষকরা মনে করছেন, মুসলিমমুক্ত এলাকা গড়তেই এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাখাইনের কো তান কাউক গ্রামে বাড়ছে গরিব রাখাইনদের ভিড়৷ একদিকে বিশাল এলাকাজুড়ে বুলডোজারে ধুলোয় মিশিয়ে দেওয়া রোহিঙ্গাদের পোড়া ঘরবাড়ির ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা চিহ্ন। অন্যদিকে, গড়ে উঠছে ছোট ছোট ঘর-বাড়ি৷সেনাবাহিনীর সহায়তা এবং বেসরকারি উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগে ঘরগুলো তৈরি হচ্ছে৷

প্রতিটি পরিবারের জন্য ঘর তৈরিতে ব্যয় হচ্ছে সাড়ে চারশ’ মার্কিন ডলার৷ ঘরগুলো তৈরি করা হচ্ছে দরিদ্রদের জন্য৷ ইতিমধ্যে তৈরি হয়েছে ৬৪টি ঘর৷ ২৫০ জনের মতো দরিদ্র রাখাইন এসে ঠাঁই নিয়েছেন সেখানে৷

বিশ্লেষকরা বলছেন, এক সময়ের রোহিঙ্গা অধ্যুষিত লোকালয়ে মুসলিমমুক্ত এলাকা গড়ে তোলার জন্যই এভাবে পরিকল্পনামাফিক রাখাইনদের জন্য আবাসন গড়ে তোলা হচ্ছে।

এদিকে, রাখাইন রাজ্যের সংসদ সদস্য বলেন, ‘এই পুরো এলাকাটা মুসলিমদের দ্বারা প্রভাবিত ছিল৷ সেনা অভিযানের পর তারা পালিয়ে গেছে৷ তাই এখন এখানে আমাদের রাখাইনদের থাকার ব্যবস্থা করতে হবে৷’

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট ব্যাপক সেনা অভিযানের পর থেকে এ পর্যন্ত ৭ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে৷ আন্তর্জাতিক চাপের মুখে মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে রাজি হলেও পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শুরু করা যায়নি৷

সূত্র: এএফপি

মতামত দিন